banglanewspaper

পাখিদের মতো করে ভাবের আদান প্রদান করে তুরস্কের কৃষ্ণ সাগর অঞ্চলের কয়েক হাজার মানুষ। বর্তমানে ভাষাটি বিপন্ন হওয়ার ঝুঁকিতে পড়ায় এ ভাষাকে উদযাপন করতে উৎসবেরও আয়োজন করা হচ্ছে। ইউনেসকো।

২০১৭ সালের ডিসেম্বরে এটিকে বিশ্ব ঐতিহ্যে তালিকাভুক্ত করেছে। পাশাপাশি সংস্থাটি এও আশঙ্কা প্রকাশ করেছে, মোবাইলের ব্যবহার বেড়ে যাওয়া ভাষাটি বিলুপ্ত হতে বসেছে।

কয়েক শতাব্দী আগে তুরস্কের গিরেসান প্রদেশের একটি গ্রামের মানুষ এ ভাষার ব্যবহার করা শুরু করে।
গ্রামটির নাম কুসকয় (তুর্কিতে পাখির গ্রাম)। 

ভাষাটি যাতে হারিয়ে না যায় সে জন্য স্থানীয় স্কুলেও শেখানো হচ্ছে এ ভাষা। গিরেসান বিশ্ববিদ্যালয়ের পর্যটন অনুষদ এ ভাষাটিকে কোর্স হিসেবে গ্রহণ করেছে।
 

ট্যাগ: bdnewshour24 পাখির ভাষা