banglanewspaper

মার্কিন সরকারের বাণিজ্য বিভাগে ইরানের একটি তেলবাহী ট্যাংকারকে কালো তালিকাভূক্ত করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের দাবি, ইরানের ওই ট্যাংকারটি সিরিয়ায় তেল সরবরাহ কাজে নিয়োজিত ছিল। ট্যাংকারটির নাম দ্য আদ্রিয়ানা ১ তবে আগে সেটি গ্রেস-১ নামে পরিচিত ছিল।

বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত জুলাইয়ে ইরানের ওই তেল ট্যাংকারটি জিব্রাল্টারে আটক করে ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষ। তারা অভিযোগ তুলেছিল, ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করে সিরিয়ায় তেল সরবরাহ করছিল।

আগস্টের শুরুতে ট্যাংকারটি ছেড়ে দেয়া হয়। তবে আটক ট্যাংকার ছাড়ার আগে ইরানকে শর্ত দেয়া হয় তারা সিরিয়ায় তাদের কার্গো খালাস করতে পারবে না। ইরান তাতে রাজি হয়। তারপর থেকেই যুক্তরাষ্ট্র ওই ট্যাংকারটি ফের আটকের চেষ্টা চালাচ্ছিল। তবে আটক করতে ব্যর্থ হয় তারা।

গ্রেস-১ নামের ওই ইরানি তেল ট্যাংকার আটক করার পর থেকে তেহরান ও লন্ডনের মধ্যে কূটনৈতিক অবনতি ঘটতে থাকে। উত্তেজনা বাড়ে। কেননা প্রতিশোধ হিসেবে ইরান স্টেনা ইমপারো নামে একটি ব্রিট্রিশ পতাকাবাহী ও সুইডিশ মালিকাধীন তেল ট্যাংকার আটক করে।

মার্কিন বাণিজ্য বিভাগ এক বিবৃতিতে বলেছে, আদ্রিয়ান দায়ারা-১ নামের ওই ট্যাংকার ইরানের রেভ্যুলেশনারি গার্ড (আইআরজিসি) বাহিনীর স্বার্থে সিরিয়ায় ২১ লাখ ব্যারেল ক্রুড ওয়েল পরিবহনের কাজে ব্যবহৃত হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র আইআরজিসিকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে কালো তালিকাভূক্ত করেছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 ইরান তেলবাহী ট্যাংকার যুক্তরাষ্ট্রে