banglanewspaper

ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির একটি রাস্তায় রিকশা থেকে নেমে বাসার উদ্দেশে হাঁটছিলেন মা এবং মেয়ে। রিকশা থেকে নামতেই দুই মোটরসাইকেল আরোহী তাদের কাছে এসে গতি কমিয়ে দেয়। কিছু বুঝে ওঠার আগেই স্কুল ছাত্রীর মায়ের গলার স্বর্ণের চেইন ছোঁ মেরে ছিনিয়ে নেয় মোটরসাইকেলের পেছনে বসা ছিনতাইকারী।

এ সময় মা এবং মেয়ে ওই ছিনতাইকারীকে ধরে টেনে হেঁচড়ে নামান মোটরসাইকেল থেকে। মা-মেয়ে মিলে ছিনতাইকারীকে মারধর শুরু করলে আশ-পাশের পথচারীরা এগিয়ে আসেন। তারাও ওই ছিনতাইকারীকে ঘিরে ধরে মারধর করতে থাকেন।

বিপদ বুঝতে পেরে ওই ছিনতাইকারীর অপর সহযোগী ও মোটরসাইকেলের চালক রাস্তার বিপরীত দিকে দৌড়ে পালিয়ে যান। এ ঘটনার একটি ভিডিও ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়ে ছড়িয়ে পড়েছে। ছিনতাইকারীকে হাতেনাতে ধরে ফেলায় অনেকেই মা-মেয়ের এমন সাহসিকতার প্রশংসা করেছেন।

ভিডিওতে দেখা যায়, পশ্চিম দিল্লির ন্যাঙ্গলইয়ের রাস্তায় রিকশা থেকে সবেমাত্র হাঁটা শুরু করেছেন মা মেয়ে। এমন সময় পেছন দিক থেকে একটি মোটরসাইকেল এগিয়ে আসে। মোটরসাইকেলের গতি কমিয়ে ওই নারীর গলা থেকে স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে দুই ছিনতাইকারী।

কিন্তু দ্রুততার সঙ্গে মা এবং মেয়ে মোটরসাইকেলের পেছনের আসনে বসা ছিনতাইকারীকে ধরে ফেলেন। তারা মোটরসাইকেল থেকে রাস্তায় টেনে নামান ওই ছিনতাইকারীকে। তবে অপর ছিনতাইকারী পালিয়ে যায়। মা এবং মেয়ের হাত থেকে ছুটে যাওয়ার চেষ্টা করলেও ব্যর্থ হয় ছিনতাইকারী। তারা দু'জন মারধর শুরু করলে পথচারীরা এগিয়ে এসে ছিনতাইকারীকে কিল-ঘুষি ও লাথি মারেন।

শুক্রবার পশ্চিমদিল্লির ন্যাঙ্গলইয়ে এ ঘটনা ঘটে। পরে ওই ছিনতাইকারীকে পুলিশের হাতে তুলে দেন উত্তেজিত জনতা। অভিযান চালিয়ে অপর ছিনতাইকারীকেও আটক করেছে দিল্লি পুলিশ। পুলিশ অভিযুক্ত দুই ছিনতাইকারীর নাম আব্দুল শামশাদ এবং বিকাশ জইন বলে জানিয়েছে।

এই দুই ছিনতাইকারীর বিরুদ্ধে অতীতে আরো বেশ কয়েকটি অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার প্রমাণ পুলিশি তদন্তে উঠে এসেছে। এক বিবৃতিতে দিল্লি পুলিশ বলছে, ওই দুই ছিনতাইকারীর বিরুদ্ধে দুটি স্বর্ণের চেইন, তিনটি মোটরসাইকেল ও দুটি মোবাইল ফোন চুরির অভিযোগ আছে।

https://twitter.com/ANI/status/1168851400903876608

ট্যাগ: bdnewshour24 ভারত ভিডিও