banglanewspaper

কাজী আশিকুল ইসলাম (আশিক), ছাগলনাইয়া প্রতিনিধি: ফেনী জেলার ছাগলনাইয়া উপজেলায় পূর্ব ছাগলনাইয়া নামক গ্রামের'র এক তরুণী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্নহত্যা করেছে।

মেয়েটির নাম উম্মে হাবিবা টুম্পা(২১)। সে আবদুল রাজ্জাক মেম্বার বাড়ির জয়নাল আবেদিন এর মেয়ে। এলাকাসূত্রে ও পরিবারের ভাষ্যমতে জানা যায়, জয়নাল আবেদীনের ৩ মেয়ের  মধ্যে টুম্পা বড়মেয়ে ছিল। জয়নাল আবেদিন দীর্ঘ দিন প্রবাসে ছিলেন। টুম্পা ২০১৮ সালে এইচএসসি পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয়।

ঘটনার কারণ ও বিস্তারিত জানতে চাইলে তার পিতার ভাষ্যমতে জানা গেছে, আগামী ১২ সেপ্টেম্বর ফুলগাজী উপজেলার লক্ষীপুর গ্রামে প্রবাসী পাত্রের সাথে টুম্পার বিয়ের দিন নির্ধারিত হয়। কিন্তু এ বিয়েতে টুম্পা পুরোপুরি রাজি ছিলো না। আমার মেয়ে এমন একটা কাজ করবে আমরা সপ্নেও ভাবিনি।

সে আরো জানায়, গতকাল ৪ সেপ্টেম্বর বুধবার তাদের বাডিতে মেয়েটির খালা বেডাতে আসে। বিকাল ৪টার দিকে তার মা এবং বাবা তার খালাকে তাদের বাড়ি থেকে চলে যাওয়ার সময় বিদায় দিতে বাড়ির সামনে যায়। খালাকে বিদায় দিয়ে তারা ফিরে এসে দেখতে পায় টুম্পা'র রুমের দরজা ভিতর থেকে বন্ধ করা। অনেক ডাকা ডাকির পরও দরজা না খুললে, তারা ধাক্কা দিয়ে দরজা ভেঙ্গে ভেতরে গিয়ে দেখতে পায় টুম্পা ঘরের আড়ার সাথে গলায় রশি দিয়ে ফাঁস দিয়ে ঝুলে আছে।টুম্পার বাবা বলে আমি বিষয়টা সাথে সাথে ছাগলনাইয়া থানায় জানায়।

থানা সূত্রে জানা যায়, টুম্পার বাবা ছাগলনাইয়া থানায় জানানোর পর খবর পেয়ে সাথে সাথে ছাগলনাইয়া থানার ওসি মোঃ মেজবাহ্ উদ্দিন আহমেদ এর নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে টুম্পার লাশ উদ্ধার করে সন্ধ্যা ৭টার দিকে থানায় নিয়ে আসে। 

এ ব্যাপারে ছাগলনাইয়া থানার ওসি মোঃমেজবাহ উদ্দিন আহমেদ বলেন প্রাথমিকভাবে আমরা এটিকে আত্নহত্যা বলে ধারণা করছি, তবে এ ব্যাপারে আমরা আরো বিস্তারিত অনুসন্ধান করছি এবং লাশ ময়না তদন্তের জন্য ফেনী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 ছাগলনাইয়া