banglanewspaper

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় নেতার পদ নিয়ে এরশাদের স্ত্রী রওশন এরশাদ ও ছোট ভাই জিএম কাদেরের দ্বন্দ্ব মেটাতে হাইকোর্টে রিট করতে যাচ্ছেন সুপ্রিম কোর্টের এক আইনজীবী।

জাতীয় পার্টির নেতা আইনজীবী ড. ইউনুছ আলী আকন্দ আগামী রবিবার রিট করবেন বলে জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, রিটে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি এরশাদের উত্তরাধিকারী ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ঠিক করে দেওয়ার নির্দেশনা চাওয়া হবে। কেননা দলের একজন সাধারণ কর্মী হিসেবে আমি বিভক্তি দেখতে চাই না।

গত ১০ জানুয়ারি বিরোধীদলীয় উপনেতা হিসেবে ছোট ভাই জি এম কাদেরকে মনোনীত করেছিলেন এরশাদ। তবে এমন সিদ্ধান্তে বেশিদিন স্থির থাকেননি প্রয়াত রাষ্ট্রপতি। ২৩ মার্চ এরশাদ এক সাংগঠনিক চিঠিতে সংসদের বিরোধীদলীয় উপনেতার পদ থেকে জিএম কাদেরকে সরিয়ে তার স্থলে স্ত্রী দলের কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদকে মনোনীত করেন।

১৪ জুলাই এরশাদ মারা গেলে দলের চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় নেতার বিষয়টি সামনে চলে আসে। নিজের অবর্তমানে পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে ভাই জিএম কাদের দায়িত্ব পালন করবেন বলে ঘোষণা দিয়েছিলেন এরশাদ। তবে বিরোধীদলীয় নেতা কে হবেন, এর কোনও সুরাহা করে যাননি।

জাপা চেয়ারম্যানের মৃত্যুর চার দিন পর ১৮ জুলাই সংবাদ সম্মেলনে জিএম কাদেরকে জাপার চেয়ারম্যান হিসেবে ঘোষণা দেন দলের মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা। এরপর ২৩ জুলাই জিএম কাদেরকে চেয়ারম্যান হিসেবে অস্বীকার করে বিবৃতি দেন রওশন এরশাদসহ দলের সাতজন সংসদ সদস্য ও দুইজন প্রেসিডিয়াম সদস্য।

চেয়ারম্যান পদের পাশাপাশি জাতীয় সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা কে হবেন না তা নিয়েও দ্বন্দ্ব দেখা দেয় দেবর-ভাবির মধ্যে। এ নিয়ে পাল্টাপাল্টি চিঠি দিয়ে স্পিকারের দৃষ্টি আকর্ষণও করেন তারা। দেবর-ভাবির এমন পাল্টাপাল্টি অবস্থানের মধ্যেই গতকাল জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে রওশন এরশাদের নাম ঘোষণা করল জাপার একাংশ।

দলে এমন দ্বন্দ্ব মেটাতে হাইকোর্টে রিট করার সিদ্ধান্ত নেন আইনজীবী ইউনুস আকন্দ। তিনি বলেন, জিএম কাদের ও রওশন এরশাদের দ্বন্দ্বের কারণে জাতীয় পার্টির লাখ লাখ নেতাকর্মী অস্বস্তিতে রয়েছেন। এ অবস্থা চলতে পারে না। জাতীয় পার্টির একজন শুভাকাঙ্ক্ষী ও কর্মী হিসেবে আমি সংক্ষুব্ধ। এ কারণে রিট করতে যাচ্ছি।

রিটে প্রধান নির্বাচন কমিশনার, স্পিকারসহ সংশ্লিষ্টদের বিবাদী করা হবে বলে জানান এ আইনজীবী।

ট্যাগ: bdnewshour24 রিট জাপার বিরোধ ইউনুস আকন্দ