banglanewspaper

‘অনেক তো হলো, আর কত! মানুষ আমাকে ছুড়ে ফেলার আগে নিজ থেকেই সরে দাঁড়াচ্ছি।’ কথাটা জানালেন বাংলা পপ সঙ্গীতের অন্যতম পথদ্রষ্টা ফেরদৌস ওয়াহিদ। তবে কোনো ক্ষোভ না অভিমান থেকে এই সিদ্ধান্ত নেননি চার দশকেরও বেশি সময় ধরে গান করা গুণী এই সংগীতশিল্পী।   

দীর্ঘ সংগীত ক্যারিয়ারে অনেক জনপ্রিয় গান উপহার দিয়েছেন এ গায়ক। ১৯৭০ ও ১৯৮০'র দশকে ফেরদৌস ওয়াহিদ বাংলা পপ সঙ্গীতকে সম্মানজনক স্থানে নিয়ে গিয়েছিলেন। সংগীতশিল্পীর পাশাপাশি নায়ক ও চলচ্চিত্র পরিচালক হিসেবেও কাজ করেছেন তিনি। এবার গান ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন দেশের খ্যাতনামা এ গায়ক। 

আর গানকে বিদায় জানানোর জন্য চূড়ান্ত করলেন ম্যাজিক্যাল সময়। ২০২০ সালের ৩১ ডিসেম্বর সব ধরনের গান থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় নেবেন ফেরদৌস ওয়াহিদ। 

তবে একেবারে নিরাশ করেননি তার ভক্তদের। জানালেন, বিদায়ের আগে ২২টি গান প্রকাশ করবেন। ফেরদৌস ওয়াহিদ বলেন, সবগুলো গানই তৈরি। ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়ের মধ্যে গানগুলো একটি একটি করে প্রকাশ করব। গানগুলো স্টুডিও ভার্সন ভিডিওতে হাবিবের এবং আমার ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশ পাবে।

ফেরদৌস ওয়াহিদ আরও বলেন, ‘২২টি গানের মধ্যে ১২টি নতুন এবং ১০টি পুরনো গান রয়েছে। নতুন গানের মধ্যে রয়েছে- ‘মাধুরী’, ‘রোদের বুকে’, ‘দি লায়লা’, ‘করলি পুড়িয়া ছাই’ প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য। 

পুরনো গানের মধ্যে রয়েছে, ‘মামুনিয়া’, ‘আগে যদি জানতাম’, ‘এমন একটা মা দে না’, ‘তুমি-আমি যখন একা’ উল্লেখযোগ্য। 

নতুন প্রজন্মের শ্রোতাদের কথা চিন্তা করে বিদায়ের আগে গানগুলো প্রকাশের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। 

সিনেমাতে ফেরদৌস ওয়াহিদ প্রথম প্লে-ব্যাক করেন দেওয়ান নজরুল পরিচালিত ‘আসামী হাজির’ সিনেমায়। পরিচালকের লেখা ও আলম খানের সুর সঙ্গীতে সাবিনা ইয়াসমিন সঙ্গে ‘আমার পৃথিবী তুমি’ গানটি করেন। সিনেমায় তার আলোচিত গান হচ্ছে ‘ওগো তুমি যে আমার কতো প্রিয়’, ‘আমি এক পাহারাদার’,‘ শোন ওরে ছোট্ট খোকা’, ‘আমি ঘর বাঁধিলাম’ ইত্যাদি। 

ট্যাগ: bdnewshour24