banglanewspaper

পিরোজপুর জেলা সংবাদদাতা : পিরোজপুর সদর উপজেলার ৭৪ নং মধ্য নামাজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নার্গিস খানমের বিভিন্ন  অপকর্মের প্রতিবাদ ও বিচার দাবি করে মানববন্ধন করেছে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও অভিভাবকবৃন্দ।

রবিবার সকালে বিদ্যালয়ের সামনে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর, অভিভাবক ও এলাকাবাসীর আয়োজনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। 

এ সময় মানববন্ধনে বক্তারা অভিযোগ করে জানান,  ৭৪ নং মধ্য নামাজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বর্তমানে শিশু শ্রেনী থেকে ৫ম শ্রেণীতে মোট ১০১ জন শিক্ষার্থী লেখা পড়া করে। কিন্তু এই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নার্গিস খানম বিদ্যালয়টিকে নিজের ইচ্ছা মতো চালিয়ে লেখাপড়ার মান খারাপ করে দিচ্ছে। নার্গিদ খানম বিদ্যালয়ে নিয়মিত উপস্থিত হয় না এবং তেমন কোন ক্লাসও নেয় না। এ বিষয়ে অভিভাবকরা জানতে চাইলে শিক্ষার্থীদের সামেনই অভিভাবকদের সাথে খারাপ ব্যবহার করে থাকে। এছাড়া প্রধান শিক্ষক প্রায়ই শিক্ষার্থীর মারধর ও অকথ্যভাষা ব্যবহার করে থাকে। এ সকল কারনেই এই প্রধান শিক্ষকের বিচার দাবি করে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা এক সাথে তাদের সন্তানদের বিদ্যালয়ের যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে।

এছাড়া শিক্ষার্থীদের দিয়ে জোড় করে স্কুলের টয়লেট পরিষ্কার ও পানির টেংকি পরিষ্কার করিয়ে থাকে। যাতে করে শিক্ষার্থীরা অনেক সময় বাড়িতে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পরে। তাই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর, অভিভাবক ও এলাকাবাসীরা  প্রধান শিক্ষক নার্গিস খানমের বিভিন্ন  অপকর্মের প্রতিবাদ ও বিচার দাবি করেন। 

মানববন্ধনে এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির  সভাপতি সেলিম শেখ, অভিভাবক সাইফুল ইসলাম লাভলু, সেন্টু সেখ, খাদিজা বেগম, জাহানারা বেগমসহ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। 

অভিযোগের বিষয়ে বিদ্যালয়ে গিয়ে প্রধান শিক্ষক নার্গিস খানম জানান, যে সকল অভিযোগে তার বিরুদ্ধে মানববন্ধন করা হয়েছে তা সবই মিথ্যা। স্থানীয় কয়েকজন ব্যক্তি ব্যক্তিগত শক্রতার কারণেই শিক্ষার্থীদের দিয়ে এ কাজ করিয়েছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 পিরাজপুর