banglanewspaper

কলা কমবেশি সবারই পছন্দের একটি ফল। অনেকের ধারণা কলা খেলে ওজন বাড়ে। আবার কেউ কেউ মনে করেন, এটি খেলে ওজন কমে। কলা নিয়ে কোন তথ্যটি সঠিক তা নিয়ে অনেকেই দ্বন্দ্বে ভোগেন। 

অন্য ফলের চেয়ে কলায় শর্করার পরিমাণ বেশি থাকে। যেমন- এক কাপ পরিমাণে কাটা আপেলে ৬০ ক্যালোরি থাকে। অন্যদিকে ওই পরিমাণ কলায় ১৩০ ক্যালোরি পাওয়া যায় । যারা ওজন কমাতে চান ক্যালোরিসম্পন্ন খাবার খাওয়া তাদের জন্য ক্ষতিকর। 

তবে এটা মনে রাখা দরকার, কলায় শর্করা ছাড়া আরও অনেক ধরনের পুষ্টি উপাদান রয়েছে। এতে থাকা পটাশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, ভিটামিন বি ও সি শরীরের জন্য দারুণ উপকারী। এছাড়া কলায় পর্যাপ্ত পরিমাণে ফাইবার থাকায় এটি হজমে সহায়তা করে। 

তা ছাড়া ফাইবার সমৃদ্ধ কলা খেলে অনেকক্ষণ পেট ভরা অনুভূত হয়। তখন অন্য খাবার খাওয়ার আগ্রহ কমে যায়। এতে ওজন বাড়ার আশঙ্কাও কমে।

ডায়েটেশিয়ানদের মতে, যারা কলা খেতে পছন্দ করেন তারা বিভিন্ন খাবারের পরিবর্তে খাদ্য তালিকায় কলা রাখতে পারেন। এটি ওজন কমাতে সাহায্য করবে। 

কলা খেলে আরও যেসব উপকারিতা পাওয়া যায়-

১. পটাশিয়াম এবং খনিজের ভালো উৎস হওয়ায় কলা উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে। 

২. যাদের ঘুমের সমস্যা রয়েছে তারা বিছানায় যাওয়ার আগে কলা খেতে পারেন। এতে থাকা পটাশিয়াম উৎকন্ঠা কমিয়ে মন শান্ত করতে সাহায্য করে। সেই সঙ্গে শরীরেও প্রশান্তি আনে। ফলে সহজেই ঘুম আসে।

৩. পর্যাপ্ত পরিমাণে ফাইবার থাকায় কলা কোষ্ঠকাঠিন্য কমাতে সাহায্য করে। এছাড়া ডায়রিয়া রোগীদের জন্যও এটি উপকারী। 

৪. কলায় যদিও শর্করার পরিমাণ বেশি থাকে তারপরও ডায়াবেটিস রোগীর কলা খেলে কোনো সমস্যা হয় না। কারণ এতে থাকা ফাইবার শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। সূত্র : হেলদিবিল্ডার্জড

ট্যাগ: bdnewshour24 কলা