banglanewspaper

মনির হোসেন জীবন, নিজস্ব প্রতিনিধি: দেশের বিনোদন পার্কগুলোর মধ্যে অন্যতম রাজধানী ঢাকার সন্নিকটে 'নন্দন পার্ক'। পার্কের ভিতরে সবুজের সমারোহ আকর্ষণ করে এখানে আসা দর্শকদের। খুব অল্প সময়ের মধ্যে সুনাম খ্যাতি অর্জন করে পার্কটি।

দর্শনার্থীদের আনাগোনায় সবসময় মুখরিত থাকে নন্দন পার্ক। তবে বেশ কিছুদিন ধরে পার্কে দর্শনার্থীদের সংখ্যা কমে এসেছে। এর কারণ হিসেবে বেশ কয়েকটি ঘটনা সামনে এসেছে।

এরমধ্যে পার্কের ভিতরে রিসোর্টে অসামাজিক কার্যকলাপের দায়ে পুলিশের হাতে কয়েকজন আটক, পার্কের স্টাফদের সাথে সিইও এর অসৌজন্যমূলক আচরণ, পার্কে মাদকদ্রব্যের ব্যবহারসহ নানা বিষয়। আর এসব কিছু ঘটেছে নন্দন পার্কের বর্তমান চীফ এক্সিকিউটিভ অফিসার (সিইও) অব. প্রাপ্ত লে. কর্ণেল তুষার বিন ইউনুস যোগ দেয়ার পর। তার তত্ত্বাবধানে এসব কর্মকাণ্ড ঘটেছে ও পার্কে দর্শনার্থীদের সংখ্যা কমে যাচ্ছে বলে দাবী করেছে পার্কে কর্মরত অনেকে ও এলাকাবাসী।

পার্কের একাধিক সূত্র জানিয়েছে, বর্তমান সিইও নিজের স্বার্থ হাসিলের জন্য নন্দন পার্ক ব্যবহার করছে। পার্কের ভিতরে রিসোর্ট এ অসামাজিক কার্যকলাপ সরাসরি সিইও নজরদারি করে। কেউ প্রতিবাদ করলে কৌশলে চাকুরীচ্যুত ও নানা ভয়ভীতি দেখায় সিইও।

এছাড়া পার্কে মাদকদ্রব্যের ব্যবহার বর্তমান সিইও এর তত্ত্বাবধানে চলে বলে জানিয়েছেন তারা। এসব কর্মাকান্ডের জন্য নিজস্ব ক্যাডার বাহিনী রয়েছে সিইও এর বলেও জানায় তারা। এসব তথ্যের সত্যতা পাওয়া যায় বেশ কয়েকদিন আগে পার্কে গাজীপুর জেলা ডিবি ও কালিয়াকৈর থানা পুলিশের যৌথ অভিযানের সময়। ওই অভিযানে অসামাজিক কর্মকান্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে তিন নারী ও তিন পুরুষকে আটক করে পুলিশ।

এছাড়া আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা অস্তিত্ব পায় মাদকদ্রব্যেরও। এর পরই মূলত নন্দন পার্কের দীর্ঘদিনের সুনামে ভাঁটা পড়ে। ক্ষোভ জানায় পার্কের স্টাফ থেকে শুরু করে স্থানীয় এলাকাবাসি। যার ফলস্বরুপ বর্তমানে কমতে শুরু করেছে পার্কে দর্শনার্থীদের সংখ্যা।

দর্শনার্থীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, পার্কের ভিতরে এখন আর আগের মত পরিবেশ নেই। অব্যবস্থাপনার স্পষ্ট ছাপ দেখা যায়। অনেক সময় পার্কে সিইও এর পরিচয় দিয়ে হয়রানী করে ও রিসোর্টে থাকতে বলে কতিপয় লোকজন।

এ বিষয়ে কথা বলতে চাইলে পার্ক কর্তৃপক্ষ ‘প্রবেশাধিকার সংরক্ষিত’ আছে বলে জানায়।

ট্যাগ: bdnewshour24 অপকর্ম সিইও নন্দন পার্ক