banglanewspaper

অদেখাকে দেখা, অচেনাকে চেনা, অজানাকে জানাই মানুষের সহজাত প্রবৃত্তি। প্রতিটি মানুষই চায় প্রতিটি কাজে, চিন্তনে ও জীবনে নিজেকে নতুন করে সবার থেকে আলদা করে উপস্থাপন করতে। এরই ধারাবাহিকতায় এবার কনে সেজে কনেযাত্রী নিয়ে বরের বাড়ি হাজির হলেন মেহেরপুরের গাংনী পৌরসভার এক মেয়ে। 

আমাদের দেশের বিয়ের রীতি অনুযায়ী, সাধারণত বর বিয়ে করতে যান কনের বাড়িতে। কিন্তু প্রচলিত নিয়ম ভেঙে ব্যতিক্রমী এই ঘটনার জন্ম দিয়েছেন কনে খাদিজা আক্তার খুশি।

গতকাল শনিবার গাংনী পৌরসভার চৌগাছা গ্রামে এমন অভিনব বিয়ে দেখতে উৎসুক গ্রামবাসীর ছিল উপচে পড়া ভিড়। অনেকেই সমালোচনা করলেও নতুন এই ভাবনাকে স্বাগতও জানিয়েছেন অনেকে। 

চুয়াডাঙ্গার হাজরাহাটি গ্রামের কামরুজ্জামানের মেয়ে খাদিজা কুষ্টিয়া ইসলামিয়া কলেজে স্নাতকের শিক্ষার্থী এবং বর গাংনী উপজেলার চৌগাছার কমরেড আব্দুল মাবুদের ছেলে তরিকুল ইসলাম জয় একজন ব্যবসায়ী।

গতকাল শনিবার দুপুরে ৭টি মাইক্রোবাস ও ৩০টি মোটরসাইকেল বহর নিয়ে কনে এসে বরের বাড়ির গেটে নামেন লাল বেনারসি শাড়ি পরে। এসময় কনেকে ফুল ও মিষ্টি মুখ করিয়ে বরণ করে নেন বরপক্ষ।

তবে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতায় যথারীতি ইসলামী শরীয়াহ অনুযায়ী মাওলানা তাদের দু’জনকে কবুল পড়ান। প্রচলিত আইন অনুযায়ীই বিয়ের রেজিস্ট্রি সম্পন্ন করান স্থানীয় কাজী। 

বিয়ে ও ভুরিভোজ সম্পন্ন হলে বিকেলে বর তরিকুল ইসলাম জয়কে নিয়ে বাবার বাড়িতে চলে যান খাদিজা। শ্বশুর বাড়িতে কয়েকদিন থেকে কনেকে নিয়ে বর ফিরে আসবেন নিজের বাড়িতে।

ব্যতিক্রমী এই বিয়ে নিয়ে কনে খাদিজা আক্তার খুশি বলেন, ‘নারী-পুরুষের সমান অধিকার হিসেবে একজন মেয়ে একজন ছেলেকে বিয়ে করতে তার বাড়িতে যেতে পারেন, তা কখনো বাস্তবায়ন হয়নি। সেই বাধার বৃত্ত ভেঙে আমরা শুরু করেছি। আশা করছি আরও অনেকেই এখন উৎসাহিত হবেন।’
 

ট্যাগ: bdnewshour24 বিয়ে