banglanewspaper

দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর বিশ্বকাপের আগে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ জিতে প্রথম কোনো ট্রফি উঁচিয়ে ধরতে পেরেছে বাংলাদেশ। সেটি ছিল ওয়ানডে ফরম্যাটের সিরিজ। এবার সুযোগ টি-টোয়েন্টি ট্রফি জয়ের। প্রথম ট্রফি জয়ে মুখিয়ে থাকা আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের ফাইনালে মুখোমুখি হবে আফগানিস্তানের।

২০০৬ সালের ডিসেম্বরে দ্বিপক্ষীয় সিরিজ দিয়ে টি-টোয়েন্টি অভিষেক হয় বাংলাদেশের। ২০০৭ সালে প্রথম টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে কোনো টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ। এরপর ৮টি টুর্নামেন্টে অংশ নিয়ে ৩বার ফাইনালে খেলেও কোনো শিরোপা আসেনি ঘরে। এবার  নিজেদের টি-টোয়েন্টি ইতিহাসে কোন টুর্নামেন্টে চতুর্থবারের মত ফাইনালে উঠলো সাকিব আল হাসানের দল। সেটাও আবার দেশের মাটিতে। প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান এই ফরম্যাটে অনেক শক্তিশালী। তবে সর্বশেষ ম্যাচের জয় আত্মবিশ্বাসী করে তুলছে টাইগারদের।

২০১৬ সালে এশিয়া কাপে প্রথমবারের মত টি-টোয়েন্টির কোন টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠেছিলো বাংলাদেশ। দেশের মাটিতে হওয়া কোন টুর্নামেন্টে প্রথমবারের মত ফাইনালে উঠেও শিরোপা জেতা হয়নি। ভারতের কাছে ফাইনালে হারতে হয়েছে ৮ উইকেটে। যদিও আওই আসরে বাংলাদেশের কাছে হেরেছিল পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কার মতো বড় বড় দল। ২০১৮ সালে শ্রীলঙ্কার মাটিতে বহুল আলোচিত নিদাহাস ট্রফির ফাইনালে ভারতের কাছে ৪ উইকেটে হারতে হয়।

এখন পর্যন্ত টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে ছয়বার মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ-আফগানিস্তান। এরমধ্যে ৪ বার আফগানরা, ২ বার জয় পায় বাংলাদেশ। চলতি ত্রিদেশীয় সিরিজের লিগ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে আফগানদের ৪ উইকেটে হারায় সাকিব-মুশফিকরা। ফলে আফগানিস্তানের কাছে টানা চার ম্যাচ হারের গেরো অবশেষে কাটে। জয় দিয়ে লিগ পর্ব শেষ করায় ফাইনালে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ফেভারিটের তকমাটা পেয়েছে বাংলাদেশই। লিগ পর্বে ৪ ম্যাচে দুই জয় ছিলো আফগানিস্তানের। বাংলাদেশ জিতেছে তিনটিতে।

ট্যাগ: bdnewshour24 টাইগার