banglanewspaper

টি-২০ সিরিজের ফাইনালে আগামীকাল আফগানিস্তানের বিপক্ষে কোন প্রকার আত্মতৃপ্তিতে না ভুগতে বাংলাদেশ খেলোয়াড়দের সতর্ক করে দিয়েছেন প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো। আগামীকাল মঙ্গলবার মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল ম্যাচটি।

টানা চার ম্যাচ পরাজিত হওয়া আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয়ের ধারায় ফেরায় কিছুটা নির্ভার রয়েছে টাইগাররা। চট্টগ্রামে সফরকারী আফগানদের চার উইকেটে হারিয়েছে স্বাগতিক বাংলাদেশ। যা টাইগারদের অতিমাত্রায় আত্মবিশ্বাসী করে তুলেছে। মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন বলেই ফেলেছেন যে, সামর্থ্যরে ৬০ ভাগ প্রয়োগ করতে পারলেই আফগানদের হারাতে পারবে টাইগাররা।

ওই মন্তব্যে বিরক্তি প্রকাশ করেছেন ডোমিঙ্গো। তিনি তার শিষ্যদের স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন যে, তারা এখনো পর্যন্ত এই টুর্নামেন্টে সেরা পারফরমেন্স দেখাতে পারেনি। তার মতে, আফগানিস্তানকে হারাতে হলে বাংলাদেশকে শুধু ভাল খেললে চলবে না, বরং অনেক ভাল খেলতে হবে। সুতরাং মাত্র ৬০ শতাংশ দিয়েই তাদেরকে হারানোর চিন্তা করাই যাবে না।

মঙ্গলবারের ফাইনাল পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে ডোমিঙ্গো বলেন, ‘৬০ ভাগ সামর্থ্য দিয়ে তাদের বিপক্ষে জয় পাবার কথা আমি চিন্তাই করি না। আমাদেরকে খুবই ভাল খেলতে হবে। আমরা যদি ৬০ ভাগ সামর্থ্য দিয়ে খেলি, তাহলে ৫০ ভাগ সামর্থ্য দিয়ে খেলেই আফগানিস্তান আমাদের হারাতে পারবে। এভাবেই আমাদের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে। আমাদেরকে আরো ভাল করতে হবে। আমরা যদি আমাদের খেলার ধার আরো বাড়াতে না পারি তাহলে, আফগানিস্তান আমাদের হারিয়ে দেবে।’

তিনি বলেন, ছয় ম্যাচের চারটিতেই জয়লাভ করা আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয়ের জন্য বাংলাদেশকে দক্ষতা বাড়ানোর পাশাপাশি গভীর মনোযোগ দিতে হবে। ডোমিঙ্গো বলেন, ‘আমরা জানি আফগানিস্তান ভাল একটি দল। তবে আমরা যদি নিজেদের সেরাটা দিয়ে খেলতে পারি তাহলে যে কোন দলকেই আমরা হারাতে পারবো। সেরাটা দিতে পারলে জয় পাওয়াটা আমাদের জন্য বিস্ময়ের কোন ব্যাপার হবে না। আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে নিজেদের দক্ষতা সঠিকভাবে প্রয়োগ করতে পারা এবং আফগানিস্তানের মত দলকে হারানোর ব্যাপারে মনস্থির করতে পারা।’

তার মতে আফগানিস্তানের দুই স্পিনার মুজিব-উর- রহমান ও রশিদ খানকে মোকাবেলা করতে হলে দক্ষতা প্রদর্শনের পাশাপাশি মনোযোগী হওয়াটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ সব ফর্মেটের ক্রিকেটেই তারা বাংলাদেশকে নিয়মিতভাবে নাস্তানাবুদ করে আসছে।

ডোমিঙ্গো বলেন, ‘মুজিব ও রশিদ দু’জনই সেরা স্পিনারের তালিকায় রয়েছেন। তাদের মোকাবেলা করতে গিয়ে অনেক ব্যাটসম্যানকেই ধুঁকতে হয়েছে। দুই জনই বিশ্ব মানের স্পিনার। নেটে আমরা তাদের মোকাবেলার বিষয়ে কিছু কাজ করছি। সেই সঙ্গে মনোযোগ ও ম্যাচ পরিকল্পনাও করে নিচ্ছি।

আমরা এখনো ক্রিকেটের সঠিক খেলাটা খেলতে পারিনি। কয়েকটি জায়গায় আমরা ভাল অবস্থায় থাকলেও বাকীগুলোতে আমাদের অবস্থান গতানুগতিক। আমরা এখনো সঠিক খেলার খোঁজে রয়েছি। শেষ পাঁচ বা ছয় ওভারে আমদের খেলতে হচ্ছে দুই বা তিনটি উইকেট নিয়ে। প্রথম ১০ ওভারেই আমরা অধিকাংশ উইকেট হারিয়ে বসছি। অন্তত দুই উইকেটে আমাদেরকে ১৫ ওভার পর্যন্ত খেলতে হবে। তাহলেই শেষ ৫ ওভারে জয়ের জন্য আমরা সঠিক মঞ্চ গড়ে তুলতে পারব। পেস ও বাউন্সের পাশাপাশি আফগান স্পিনারদের ভালভাবে মোকাবেলা করার পথ দেখতে হবে।’ তবে জানি না উইকেটে কি অপেক্ষা করছে। আন্তর্জাতিক টি-২০ ম্যাচকে মনের মধ্যে রেখেই খেলোয়াড়দের প্রস্তুতি নিতে হবে বলে মনে করেন আফ্রিকান এই কোচ।

তিনি বলেন, ‘উইকেট দেখে আমরা দ্বাদশ খেলোয়াড় হিসেবে একজন সিমারকে দলভুক্ত করতে যাচ্ছি। তবে আগামীকাল এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। সেখানে যদি বেশি পেস ও বাউন্স খেলার সুযোগ থাকে তাহলে সেটিকেই তাদের বিপক্ষে কাজে লাগাতে হবে। তবে চারজন পেসার নিয়ে খেলার যে চিন্তা আমরা করছি তা অবশ্যই আলাদা কিছু।’

ট্যাগ: bdnewshour24 ডোমিঙ্গো