banglanewspaper

নিজ দেশের প্রতি ভালবাসা এবং দলের সাফল্যে অবদান রাখার লক্ষ্যে নিজের অবস্থা যা-ই হোক না কেন চলমান ত্রিদেশীয় টি-২০ সিরিজের ফাইনালে আগামীকাল বাংলাদেশের বিপক্ষে মাঠে নামতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করবেন বলে জানিয়েছেন আফগানিস্তান অধিনায়ক রশিদ খান।

বাংলাদেশের বিপক্ষে শেষ ম্যাচে হ্যামস্ট্রিং ইনজুরিতে পড়েন এবং মাঠ ত্যাগ করেন আফগান অধিনায়ক। তবে সবাইকে বিস্মিত করে ২০ মিনিট পড়েই আবার মাঠে ফিরে নিজের নির্ধারিত ৪ ওভার বোলিং করেন। ব্যথা নিয়েই তিনি খেলা চালিয়ে যান।

রশিদ খান বলেন গুরুতর ইনজুরি সত্ত্বেও সর্বান্ত:করণে দেশের হয়ে খেলার একটা উদাহরণ সুষ্টির লক্ষ্যেই মূলত তিনি মাঠে নেমেছেন।

তিনি আজ সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমার মনে হয় বোলিং করাটা আমার উচিত হয়নি। তবে দলের যখন আপনাকে প্রয়োজন তখন আপনাকে মাঠে নামতে হবে। বিশেষ করে আমরা যে দেশে বাস করি যেখানে সত্যিকারার্থে আমরা আমাদের উপর খুব বেশি ফোকাস দিতে পারি না এবং যখনই দেশের বিষয় আসে তখন একটা হাত না থাকলেও আমরা নিজেদের উজাড় করে দিতে পারি।’

‘যেমনটা আমরা দেখেছি বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে জিম্বাবুয়েতে আসগর আফগান এ্যাপেনডিক্স অপারেশনের মাত্র চার দিন পর মাঠে নেমেছেন এবং বলেছেন আমি খেলব। দলের তরুণ খেলোয়াড়রা এ থেকে শিখছে।’

‘আমার যদি খেলার দশ শতাংশ সম্ভাবনাও থাকে আমি মাঠে নামব। কেননা আমি আমার দেশকে ভালবাসি এবং আমার দেশ চায় আমরা ম্যাচটি জিতি। নিজের চেয়ে এটাই আমার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।’

গত ম্যাচে পড়া ইনজুরি নিয়ে খেলার সিদ্ধান্ত সঠিক না হলেও ফাইনালের আগে সুস্থ হয়ে উঠবেন বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘মূল কারণ ছিল আমি নিশ্চিত হতে চেয়েছিলাম যে, আমি বোলিং করতে পারব কি-না। দলের ফিজও ও কোচ চাননি আমি মাঠে নামি। আমি বলেছি-না। আমি ইনজুরির অবস্থাটা বড় কি-না বুঝতে চেয়েছিলাম, পরের ম্যাচে এটার উন্নতি হয় কি-না সেটাও বুঝতে চেয়েছিলাম। আমি দুই ওভার বোলিং করে দেখলাম ঠিক আছে। কিন্ত পরবর্তীতে ফিল্ডিং করার সময় আমাকে সমস্যায় পড়তে হয়েছে, যা আরো ক্ষতি করেছে। এখন আশা করছি আগামীকাল ঠিক হয়ে যাবে।’

দলে ভাল বিকল্প থাকায় তিনি না খেলতে পারলেও ফাইনালে সমস্যা হবে না মনে করছেন রশিদ।

তিনি বলেন, ‘আমাদের দলে বিকল্প আছে। আমাদের দলে মুজিব, নবী এবং শারাফ ভাল বাঁ-হাতি স্পিনার এবং ভাল স্পিনার আছে। আমি না থাকলে সমস্যা হবে এমনটা আমি মনে করি না।’

ট্যাগ: bdnewshour24 রশিদ