banglanewspaper

মাগুরা প্রতিনিধি ॥ মহম্মদপুরের ইছামতি বিল ও নহাটা বাজারের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের ঘটনায় মুখোমুখি অবস্থান নিয়েছে মহম্মদপুর উপজেলা ভূমি কর্মকর্তা ও একই উপজেলার নহাটা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আহবায়ক মোস্তফা কামাল সিদ্দিকি লিটন, স্থানীয় আওয়ামী লীগের অন্যান্য নেতাসহ বাজারের কিছু ব্যবসায়ী। 

নহাটা বাজারে গতকাল শনিবার স্থানীয় ক’জন সাংবাদিকের উপস্থিতিতে সংবাদ সম্মেলনসহ বিক্ষোভ করেছে স্থানীয় ব্যবসায়ী ও আওয়ামী লীগ নেতারা।

সংবাদ সম্মেলনে নহাটা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান নহাটা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক নহাটা বাজারের ঘর মালিক মোস্তফা কামাল সিদ্দিকি লিটন, অপর ঘর মালিক মহম্মদপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মনিরুল ইসলাম লুলুসহ নহাটা বাজারের কয়েকজন ঘর মালিক বক্তব্য রাখেন।

তাদের অভিযোগ, মহম্মদপুর উপজেলার সহকারি কমিশনার ভূমি (এসি ল্যান্ড) মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন নহাটা বাজারের খাস জমি বন্দোবস্ত দেওয়ার নামে সন্ত্রাস, ভয়ভীতি ও ত্রাস সৃষ্টির মাধ্যমে নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছেন। তিনি সম্প্রতি সময় না দিয়ে বিনা নোটিশে খাস জমি দাবি করে অনেক ব্যবসায়ীর ঘর ভেঙ্গে দিয়েছেন। পাশাপাশি কিল ঘুষি ও লাথিসহ অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেছেন দোকানদারদের সাথে। হোটেল ব্যবসায়ী জসিম উদ্দিন, চায়ের দোকান রুবেল যার ভুক্তভোগী। মোটা অংকের টাকায় নতুন করে খাস জমি বন্দেবস্ত দেয়ার অসৎ উদ্দেশে এসি ল্যান্ড এসব করছেন বলে তারা অভিযোগ করেন।

অন্যদিকে মহম্মদপুর উপজেলার সহকারি কমিশনার ভূমি (এসি ল্যান্ড) মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিনের দাবি, নহাটার আওয়ামী লীগ নেতা মোস্তফা কামাল লিটন ইছামতি বিলের ১৫ একর জমি কয়েক দশক ধরে সরকারি রাজস্ব ও বৈধ কাগজপত্র ছাড়াই ভোগ দখল করে আসছিলেন। একইসাথে এলাকার আরো কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি ওই বিলের বিপুল পরিমান জমি অবৈধভাবে দখল করেছিল। সরকারিভাবে সম্প্রতি ওই বিল থেকে এসব অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ করা হয়েছে।

একইভাবে নহাটা বাজারে লিটনসহ প্রভাবশালী ব্যবসায়ীদের যেসব অবৈধ স্থাপনা ছিল তা উচ্ছেদ করা হয়েছে। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে আওয়ামী লীগ নেতাসহ অন্যরা ভূমি অফিসের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 মাগুরা