banglanewspaper

দেশের অনলাইন ক্যাসিনোর মূলহোতা সেলিম প্রধানে বিরুদ্ধে দুটি মামলা করেছে র‌্যাব। মানিলন্ডারিং ও মাদকদ্রব্য আইনে রাজধানীর গুলশান থানায় মামলা দুটি করা হয়।

এছাড়া সেলিমের গুলশানের বাসায় হরিণের চামড়া পাওয়ায় মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে তাকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

গুলশান থানার ডিউটি অফিসার এসআই সাদেক বলেন, ‘র‌্যাব মামলার সব আলামতসহ থানায় জমা দিয়েছে। তার বিরুদ্ধে গুলশান থানায় দুটি মামলা হয়েছে।’

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার সহকারী পরিচালক মিজানুর রহমান জানান, বুধবার ভোরে সেলিম প্রধানের বিরুদ্ধে দুটি মামলা করা হয়েছে। এর মধ্যে একটি মানিলন্ডারিং এবং অপরটি মাদকদ্রব্য আইনে। এছাড়া বন্য প্রাণীসংরক্ষণ আইনে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

র‌্যাব কর্মকর্তা বলেন, ‘মামলায় সেলিম প্রধান ছাড়াও তার দুই সহযোগী আক্তারুজ্জামান ও রহমানকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।’

ঢাকায় জন্মগ্রহণ করা সেলিম প্রধান তার ভাইয়ের হাত ধরে হাজার ১৯৮৮ সালে জাপান চলে যান। সেখানে গিয়ে ভাইয়ের সঙ্গে গাড়ির ব্যবসা শুরু করেন। পরবর্তী সময়ে জাপানিদের সঙ্গে সম্পর্ক হওয়ার পর সেখান থেকে থাইল্যান্ড যান। সেখানে শিপইয়ার্ডের একটি ব্যবসা শুরু করেন।

পরবর্তী সময়ে জাপানিদের মাধ্যমে উত্তর কোরিয়ার এক ব্যক্তির সঙ্গে পরিচয় হয়। যার নাম মিস্টার দু। এমিস্টার দু সেলিমকে বাংলাদেশ একটি কনস্ট্রাকশন সাইট খোলার প্রস্তাব দেন। সেই সঙ্গে বাংলাদেশ একটি অনলাইন ক্যাসিনো খেলার পরামর্শ দেন। সেই সূত্র ধরে টি-২১ এবং পি-২৪ নামে অনলাইন গেমিং সাইট চালু করেন। এর মূল কাজ হচ্ছে টাকার মাধ্যমে খেলা।ৎ

সোমবার দুপুরে ঢাকা থেকে ছেড়ে যাওয়া ব্যাংকগামী থাই এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইট (টিজি ৩২২) থেকে সেলিম প্রধানকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে গুলশান-২ নম্বরের ৯৯ নম্বর রোডের ১১/এ ছয়তলা বাসায় অভিযান চালানো হয়। এছাড়া বনানীতে তার ব্যবসায়িক অফিসে অভিযান চালায় র‌্যাব।

অভিযানে ৪৮টি মদের বোতল, ২৯ লাখ পাঁচ হাজার ৫০০ নগদ টাকা, ২৩টি দেশের বৈদেশিক ৭৭ লাখ ৬৩ হাজার টাকা সমমূল্যের মুদ্রা ও ১৩টি ব্যাংকের ৩২টি চেক, অনলাইন ক্যাসিনো খেলার মূল সার্ভার, আটটি ল্যাপটপ এবং দুটি হরিণের চামড়া জব্দ করা হয়।

ট্যাগ: bdnewshour24 সেলিম প্রধান