banglanewspaper

রাজশাহীতে থানার সামনে নিজের শরীরে আগুন লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করা কলেজছাত্রী লিজা আক্তার মারা গেছেন। স্বামীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা করতে গিয়ে ব্যর্থ হয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন তিনি।

বুধবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান লিজা।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গত ২৮ সেপ্টেম্বর রাজশাহীর শাহ মখদুম থানা থেকে বেরিয়ে গায়ে কেরোসিন দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেন লিজা আক্তার। ওইদিন রাতে তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আগুনে লিজার শরীরে ৬৩ শতাংশ পুড়ে যায়।

লিজা গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার প্রধান পাড়ার আব্দুল লতিফ বিশ্বাসের পালিত মেয়ে। তিনি রাজশাহী মহিলা কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির বাণিজ্য বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন। তার স্বামীর নাম সাখাওয়াত হোসেন। তিনি রাজশাহী সিটি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী। সাখাওয়াত চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল উপজেলার খান্দুরা এলাকার খোকন আলীর ছেলে।

গত জানুয়ারিতে প্রেম করে পরিবারের অমতে বিয়ে করেন তারা। বিয়ের পর থেকেই নগরীর গাঙপাড়া এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে সংসার করছিলেন সাখাওয়াম-লিজা। স্বামীর সঙ্গে বিবাদে জড়িয়ে থানায় মামলা করতে গিয়েছিলেন লিজা। থানায় মামলা না নেয়ায় তিনি গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।   

ট্যাগ: bdnewshour24 গায়ে আগুন কলেজছাত্রী