banglanewspaper

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের (২১) হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেল এবং সহ সভাপতি মুস্তাকিন ফুয়াদকে আটক করা হয়েছে।

সোমবার (৭ অক্টোবর) আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহরাব হোসেন।

তিনি বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আমরা মেহেদী হাসান রাসেল ও মুস্তাকিম ফুয়াদ নামে দুই ছাত্রলীগ নেতাকে আটক করেছি। তাদের থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তারা দুজনেই শের-ই-বাংলা হলেই থাকেন। অধিকতর তদন্তের জন্য আরও কয়েকজনকেও আটক করা হতে পারে বলে তিনি জানান।

প্রত্যক্ষদর্শী ও হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা জানান, রাত ১১টার দিকে আবরারকে ২০১১ নম্বর কক্ষে ডেকে নিয়ে যায় ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। এর পর তাকে জেরা করতে করতে পেটাতে থাকে নেতা-কর্মীরা। বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের আইনবিষয়ক উপ-সম্পাদক ও সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী অমিত সাহা, উপ-দফতর সম্পাদক ও কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী মুজতাবা রাফিদ, সমাজসে বাবিষয়ক উপ-সম্পাদক ও বায়োমেডিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী ইফতি মোশারফ ওরফে সকালসহ ছাত্রলীগের আরও কয়েকজন কর্মী সে দলে ছিলেন।

এর আগে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) একটি হল থেকে আবরার ফাহাদ (২১) নামের এক শিক্ষার্থীর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করার অভিযোগ করছে শিক্ষার্থীরা। তার গায়ে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

রহস্যজনক এই মৃত্যুর ৮ ঘণ্টা আগে ভারতকে সমুদ্র বন্দর, পানি ও গ্যাস দেয়ার চুক্তির বিরোধিতা করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন নিহত বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ।

ট্যাগ: bdnewshour24 ছাত্রলীগ