banglanewspaper

নীলফামারী প্রতিনিধি: বির্তকিত রাজনৈতিক পরিবারের সদস্যকে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সাঃ সম্পাদক পদে রেখে ইউনিয়ন কমিটি অনুমোদন করলেন নীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সব্যসাচী রায় ও সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান মানিক। 

লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানাযায়,নীলফামারীর ডোমার উপজেলার হরিণচড়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের বর্ধিত সভা গত ৪মে হরিণচড়া ইউনিয়ন পরিষদ মাঠে অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় সভাপতি পদে ডালিম কুমার রায়, নুরকাদের সরকার ইমরান, আকাশ অধিকারী অলোক,রুবেল ইসলামসহ মোট চারজন ও সাধারণ সম্পাদক পদে রাশেদুল ইসলাম রাশেদ, মোস্তাকিন ইসলাম, সুরজিৎ রায়, ইব্রাহীম ইসলামসহ চারজন ছাত্রনেতা উপজেলা নেতৃবৃন্দের কাছে সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক পদে মনোনয়ন দাখিল করেন।

কিন্তু  সাধারণ সম্পাদক পদে রাশেদুল ইসলাম রাশেদ মনোনয়ন দাখিল করায় উপস্থিত আওয়ামী পরিবারের নেতা কর্মীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। নেতৃবৃন্দ দ্বিতীয় অধিবেশনে কমিটি ঘোষনা না করে পরবর্তীতে কমিটি ঘোষনা করা হবে বলে উপজেলা নেতৃবৃন্দ সভা সমাপ্ত ঘোষণা করে চলে আসেন।

পরে হরিণচড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, সেচ্ছাসেবকলীগ, ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা রাশেদুল ইসলাম রাশেদের সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থীতার ঘোর বিরোধিতা করে উপজেলা আওয়ামী লীগ, জেলা ছাত্রলীগ ও উপজেলা ছাত্রলীগের কাছে লিখিত অভিযোগ করলে সাময়িকভাবে হরিণচড়া ছাত্রলীগ কমিটি ঘোষণা বন্ধ হয়ে যায়।

পরবর্তীতে ১১অক্টোবর রাতে ডোমার ছাত্রলীগ কার্যালয়ে ডালিম কুমার রায়কে হরিণচড়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ও বিতর্কিত জামাত বিএনপি পরিবারের ছেলে রাশেদুল ইসলাম রাশেদকে সাধারণ সম্পাদক করে ডোমার উপজেলা ছাত্রলীগ সব্যসাচী রায় ও সাধারন সম্পাদক হাফিজুর রহমান মানিক কমিটি অনুমোদন করেন।

বিবাহিত ও ছাত্রলীগ পছন্দ করেন না এমন ব্যক্তিও  অনুমোদিত কমিটিতে স্থান পেয়েছে।

এ ব্যাপারে নীলফামারী জেলা  ছাত্রলীগ সাধারন সম্পাদক মাসুদ সরকার বলেন, ‘হরিণচড়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগ কমিটি বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি সে ব্যাপারে খতিয়ে দেখার জন্য বলা হয়েছে এবং বিবাহিতরা কমিটিতে স্থান পাওয়ার এখতিয়ার নেই।’

ডোমার উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি সব্যসাচী রায় অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি স্বিকার করে বলেন, ‘আমরা অভিযোগের বিষয়টি খতিয়ে দেখেছি রাশেদের বাবা একজন টোকেনধারী আওয়ামী লীগ সদস্য ও রুবেল ইসলাম বিবাহিত তা আমার জানা নাই।’

অভিযোগকারীর পক্ষে হরিণচড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ময়নুল ইসলাম বলেন, ‘নতুন কমিটি অনুমোদনের বিষয়টি আমার জানা নাই। আমার ইউনিয়নের ওয়ার্ড সভাপতি,সম্পাদকরা এই বিষয়ে মেনে নিতে পারছে না। আমি বিষয়টি আবার আলোচনা করে দেখি কি করা যায়।’

সাধারণ সম্পাদক পদে মনোনয়ন দাখিলকারী সুরজিৎ রায় ও সভাপতি পদে মনোনয়ন দাখিলকারী  আকাশ অধিকারী অলোক কমিটিতে স্থান না পেয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘পরিক্ষিত ছাত্রলীগকে কমিটিতে স্থান না দিয়ে বিবাহিত ও বিএনপি জামাত পরিবারের সদস্যদের দিয়ে হরিণচড়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কমিটি গঠন করা হয়েছে আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাই।’

ট্যাগ: bdnewshour24 ডোমার