banglanewspaper

পেটের মধ্যে ঢুকানো আছে দুটি ছুরি। গাছে ঝুলে আছে একটি শিশুর লাশ। ডান হাতটি গলার সঙ্গে থাকা রশির ভেতরে ঢুকানো আছে। বাম হাতটি ঝুলে আছে লাশের সঙ্গে। কেটে নেওয়া হয়েছে শিশুটির কান ও লিঙ্গ।

আর তার পুরো শরীর ভিজে আছে রক্তে। এমন একটি নৃশংসতম হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়েছে সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলায়।

সোমবার ভোরে তুহিন নামে পাঁচ বছর বয়সী শিশুটির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।  কে বা কারা তাকে এমন নৃশংসভাবে হত্যা করেছে তা বলতে পারছে না কেউ। এই ঘটনার পর থেকে এলাকার শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

স্তব্ধতা বিরাজ করছে পুরো দিরাই উপজেলায়। তুহিন দিরাই উপজেলার রাজানগর ইউপির কেজাউরা গ্রামের আব্দুল বাছিরের ছেলে।

নিহতের আত্মীয় সাংবাদিক ইমরান হোসেন জানান, রবিবার রাতে খাবার খেয়ে ঘুমাতে যায় শিশু তুহিন। রাতের কোনো এক সময় দুর্বৃত্তরা ঘুম থেকে তুলে নিয়ে তুহিনের কান ও লিঙ্গ কেটে নিয়ে লাশটি গাছের সঙ্গে রশি দিয়ে বেঁধে রেখে যায়। তাকে হত্যায় ব্যবহৃত দুটি ছুরি তার পেটের আটকে দিয়ে যায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।

দিরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ এক এম নজরুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে পুলিশ লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করছে। বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখছেন তারা। হত্যায় যারা জড়িত তাদের ধরতে পুলিশ অভিযান চালাবে। খুনিদের কোনো ছাড় দেবে না আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

ট্যাগ: bdnewshour24 পেটে ছুরি রশি শিশুর লাশ