banglanewspaper

আজ পহেলা কার্তিক। মরমী সাধক বাউল সম্রাট ফকির লালন শাহয়ের ১২৯তম তিরোধান দিবস (মৃত্যু বার্ষিকী)। এ উপলক্ষে কুষ্টিয়ায় শুরু হচ্ছে তিন দিনব্যাপী স্মরণোৎসব।

লালন একাডেমি ও জেলা প্রশাসন দিনটিকে লালনের তিরোধান দিবস বা প্রয়াণ দিবস হিসেবে পালন করলেও লালন ভক্ত, সাধু-গুরু-গোসাইরা দিনটিকে 'উফাত দিবস' হিসেবে পালন করেন।

এদিকে দিবসটি উপলক্ষে লালনের চারণভূমি ও সাধন-ভজনের তীর্থস্থান লালনের আঁখড়াবাড়িতে বসছে সাধুর হাট। সাঁইজির টানে লালনের ধামে ছুটছে মানুষ। যেখানে মিলন ঘটতে যাচ্ছে, নানা ধর্ম ও বর্ণের মানুষের।

কুষ্টিয়া শহর থেকে মাত্র ১০-১৫ মিনিটের পথ যেতে আজ সময় লাগবে এক ঘণ্টার ওপরে। সাঁইজির টানে লালনের আখড়াবাড়িতে বাউল ছাড়াও সাধারণ দর্শনার্থীর ভিড় লেগেছে। দূর দূরান্ত থেকে বাউল-সাধক কয়েকদিন আগ থেকেই এসে আসন গেড়েছে এখানে।

লালন গবেষক বাউল হৃদয় শাহ বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে জানান, 'মরমি সাধক বাউল সম্রাট ফকির লালন সাঁই বাঙালির চেতনায় এক কালপুরুষ। লালন সাঁইয়ের সংগীত আমাদের অনুপ্রাণিত করে। তাই আমি নিয়মিত এখানে আসি।' পহেলা কার্তিকে সাউজিকে আমরা স্মরণ করি। এ দিনে তার মৃত্যুবার্ষিকী হলেও দিনটিকে আমরা 'উফাত দিবস' হিসেবে পালন করি।।

বুধবার (১৬ অক্টোবর) সন্ধ্যায় তিন দিনব্যাপী এ স্মরণোৎসবের উদ্বোধন করবেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি।

লালন একাডেমির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সেলিম হক বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে জানান, লালনের মানবতাবাদ ও অসাম্প্রদায়িকতা প্রেরণা যোগায় ভক্তদের। আধ্যাত্ম-সাধনার নিগূঢ় পদ্ধতি শিষ্যদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে তাঁর গানের মাধ্যমে। উৎসবে সেই নিগূঢ় তত্ত্ব, সাধন-প্রণালী জানতে পারে ভক্তরা। তাই বছরের দুটি উৎসবে লালন ভক্ত অনুসারীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে লালনের আখড়াবাড়ি।

কালীগাঙের ভরাট উন্মুক্ত মঞ্চে লালনের জীবনদর্শন ও স্মৃতিচারণের মধ্যে দিয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। পরে রাতভর চলবে লালন একাডেমি ও বিভিন্ন শিল্পগোষ্ঠীর আয়োজনে লালন সঙ্গীতানুষ্ঠান। তাছাড়াও থাকবে গ্রামীণ লালন মেলা।

ট্যাগ: bdnewshour24 লালন