banglanewspaper

প্রশ্ন: ইসলামিক গানের সঙ্গে বাজনা থাকলে তা শোনা জায়েজ হবে কী?

উত্তর: না, জায়েজ হবে না। 

রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আরও ইরশাদ করেন, আমার উম্মতের কিছু লোক মদের নাম পরিবর্তন করে তা পান করবে। আর তাদের মাথার উপর বাদ্যযন্ত্র ও গায়িকা রমনীদের গান বাজতে থাকবে। আল্লাহ তাআলা তাদেরকে যমীনে ধ্বসিয়ে দিবেন এবং তাদের কতককে বানর ও শূকরে রুপান্তরিত করবেন। (সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদীস: ৪০২০; সহীহ ইবনে হিব্বাস হাদীস: ৬৭৫৮।)

হযরত আব্বাস রাঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন- দফ হারাম। বাদ্যযন্ত্র হারাম। মদের পেয়ালা হারাম। বাঁশী হারাম। (সুনানে সুগরা লিলবায়হাকী, হাদীস নং-৩৩৫৯, সুনানে কুরবা লিলবায়হাকী, হাদীস নং-২১০০০)

হযরত আবূ হুরায়রা রাঃ থেকে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, শেষ জামানায় আমর উম্মত বানর ও শুকরে রুপান্তরিত হবে। জিজ্ঞাসা করা হলো- হে আল্লাহর রাসূল! তারা সাক্ষি দিবে যে, আল্লাহ তাআলা ছাড়া কোনো মাবুদ নাই এবং আপনি আল্লাহর রাসূল এবং রোযা রাখার পরও?

নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম জবাব দিলেন, হ্যাঁ।

বলা হলো, তাদের অপরাধ কি?

বললেন, তারা বাদ্য, গায়িকা এবং দফের বাজনা গ্রহণ করবে। মদ খাবে, রাতে মদ খেয়ে মাতাল হয়ে ঘুমাবে। আর সকালে দেখবে তারা বানর ও শুকরে পরিণত হয়ে গেছে। (হিলয়াতুল আওলিয়া-৩/১১৯) সূত্র: আহালে হক মিডিয়া।

ট্যাগ: bdnewshour24 ইসলাম