banglanewspaper

২০২১ সালের জুনের মধ্যে পদ্মা সেতুর কাজ শেষ হবে বলে জানিয়েছেন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘পদ্মা সেতুর বাস্তব কাজের অগ্রগতি হয়েছে ৮৪ শতাংশ। সেতুর আর্থিক অগ্রগতি ৭৫ দশমিক ৮৪ শতাংশ এবং প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি ৭৪ শতাংশ।’

বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে মুন্সীগঞ্জের দোগাছিতে পদ্মা সেতুর সার্ভিস এরিয়া-১ এর ভিজিটরস সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি৷

মন্ত্রী বলেন- মূল সেতুর ৪২ পিয়ারের মধ্যে ৩২টি সম্পূর্ণ হয়েছে। বাকি ১০টির কাজ চলমান রয়েছে। ৪১টি ট্রাসের মধ্যে ৩১টি চীন থেকে মাওয়ায় পৌঁছেছে। ২৮৯১টি রেলওয়ে স্ল্যাব তৈরি হয়েছে,  ৩৬১টি স্থাপন করা হয়েছে। মাওয়া ও জাজিরা ভায়াডাক্টের পাইলিং, পিয়ার ও পিয়ার ক্যাপে কাজ শেষ হয়েছে। বর্তমানে গ্রার্ডার এবং রেলওয়ে স্ল্যাব স্থাপনের কাজ চলছে।

নদী শাসনের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, নদী শাসনের বাস্তব অগ্রগতি ৬৩ শতাংশ এবং আর্থিক অগ্রগতি ৫০.৪০ শতাংশ। ১৪ কিলোমিটার নদী শাসনের মধ্যে ৬.৬০ শতাংশ সম্পূর্ণ হয়েছে। নদী শাসন কাজের চুক্তিমূল্যের ৮৭০৭.৮১ কোটি টাকার মধ্যে ব্যয় হয়েছে ৪,৩৮৮.৪৬ কোটি টাকা।

এছাড়া পদ্মা সেতু প্রকল্পের ২১শ ৫৯ একর অব্যবহৃত জমি পতিত রাখা হবে না বলে জানান ওবায়দুল কাদের। বলেন, সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে সে জমিতে খামার তৈরির মাধ্যমে দুধ ও মাংস উৎপাদন করা হবে। এ বিষয় একটি চুক্তি সই হয়েছে। গবাদি পশুর প্রজনন ও জাতের উন্নয়ন কাজে কর্মসংস্থান তৈরি হবে। জাতীয় অর্থনীতি জিডিপিতেও এটি অবদান রাখবে।

দ্রুত পদ্মা নেতুর কাজ শেষ করার আশাবাদ ব্যক্ত করে সেতুমন্ত্রী বলেন,‘২০২১ সালের জুনের মধ্যে আমরা কাজ শেষ করতে চাই। তবে পদ্মা নদী খুবই আনপ্রেডিক্টেবল (অননুমেয়)। একইসঙ্গে নদীতে তীব্র স্রোত থাকে এবং প্রচুর পলি বহন করে। এতে করে পিয়ারে স্প্যান বসানো সম্ভব হয় না। সিডিউল অনুযায়ী কাজ শেষ করা কঠিন হয়ে পড়ে।

মন্ত্রী বলেন, আমিতো মরেই গেছিলাম, জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণ থেকে আল্লাহর অশেষ রহমতে বেঁচে ফিরেছি।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন সেতু মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব খন্দকার আনোয়ার ইসলাম, পদ্মা বহুমুখী সেতুর পরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম, জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম পিপিএম (বার)।

ট্যাগ: bdnewshour24 পদ্মা সেতু কাদের