banglanewspaper

হবিগঞ্জ সদর উপজেলায় কৃমিনাশক ওষুধ খেয়ে মারা গেছে সাথী আক্তার নামে ছয় বছর বয়সী এক শিশু। এছাড়া অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছে তার দুই ভাই।

গতকাল শুক্রবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে উপজেলার উচাইল চারিনাও গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ওই গ্রামের সিরাজুল ইসলামের তিন সন্তান। তাদের মধ্যে বড় তোফাজ্জল (৮)। রবিউল (৬) মেজ ও সাথী আক্তার ছোট (৬)।

শুক্রবার রাতে তিন সন্তানকে কৃমির ওষুধ খাওয়ান মা। এর কিছুক্ষণ পর তাদের পেটে ব্যথা শুরু হয়। তিনজনই বমি করতে থাকে। এক পর্যায়ে তাদের উদ্ধার করে হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক সাথীকে মৃত ঘোষণা করেন। এছাড়া অসুস্থ দুই ভাইয়ের অবস্থাও ভালো না হওয়ায় তাদের সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

মারা যাওয়া সাথীর বাবা সিরাজুল ইসলাম জানান, সম্প্রতি স্থানীয় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে স্কুলের ছাত্র/ছাত্রীদের সরকারিভাবে কৃমিনাশক ওষুধ সরবরাহ করা হয়েছিল। সেখান থেকে তিনি কৃমির ওষুধ আনেন। রাতে তার স্ত্রী সেই ওষুধ তিন ছেলে-মেয়েকে খাওয়ালে তারা অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিলে তার মেয়ে মারা যান।

হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালের চিকিৎসক হায়দার আলী জানান, মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ খেয়ে থাকলে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কারণে এ ঘটনা ঘটতে পারে। তবে ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে বিস্তারিত বলা যাবে।

হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাসুক আলী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। পুলিশ প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন করতে কাজ করছে।

ট্যাগ: bdnewshour24কৃমিনাশক ওষুধ