banglanewspaper

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বাল্যবিয়ের দায়ে কারাগারে গেছেন বর অন্তর ঋষি (২১)। সোমবার (২১ অক্টোবর) রাত সাড়ে ৭ টায় সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পঙ্কজ বড়ুয়া বর অন্তর ঋষিকে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন।

এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত কনে হেনা ঋষিকে (১৪) প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত স্বামীর বাড়িতে পাঠাবেন না মর্মে কনের পিতা-মাতার কাছ থেকে মুচলেকা নেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, সদর উপজেলার সুহিলপুর ইউনিয়নের কাশিনগর গ্রামের রাজেন্দ্র ঋষির ছেলে অন্তর ঋষির সাথে একই এলাকার মাধব ঋষির কন্যা হেনা ঋষির দীর্ঘদিন ধরে প্রেম চলে আসছিল। সোমবার (২১ অক্টোবর) সকালে প্রেমিকযুগল বাড়ি থেকে পালিয়ে হবিগঞ্জ জেলার নোটারী পাবলিকের কার্যালয়ে গিয়ে নিজেদের বয়স বাড়িয়ে বিয়ে করেন। বিয়ের পর সন্ধ্যায় অন্তর তার স্ত্রী হেনাকে নিয়ে নিজ বাড়িতে চলে আসলে স্থানীয় মেম্বার নির্মল চন্দ্র দাসের মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পেরে রাত ৭টায় সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পঙ্কজ বড়ুয়ার নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত বরের বাড়িতে উপস্থিত হয়। পরে বর অন্তর ঋষিকে বাল্যবিয়ে করার দায়ে বাল্যবিয়ে নিরোধ আইন-২০১৭ এর ৭ এর ১ ধারায় এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন এবং কনে হেনা ঋষিকে প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত তার স্বামীর বাড়িতে পাঠাবে না মর্মে তার মা-বাবার কাছ থেকে মুচলেকা আদায় করেন।

ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনাকারী সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পঙ্কজ বড়ুয়া বলেন, “বাল্যবিয়ের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

তিনি বলেন, “বর-কনের বয়স বাড়িয়ে নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে বিয়ের বিষয়টি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের মাধ্যমে হবিগঞ্জের বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে অবহিত করা হবে।”

ট্যাগ: bdnewshour24 প্রেম