banglanewspaper

তুরস্কের ওপর থাকা অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। বুধবার (২৩ অক্টোবর) হোয়াইট হাউসে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এ ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, ‘সিরিয়ায় কুর্দি যোদ্ধাদের বিরুদ্ধে আক্রমণ চালানোর কারণে নয় দিন আগে যুক্তরাষ্ট্র তুরস্কের ওপর যে অবরোধগুলো আরোপ করেছিল, তা তুলে নেয়া হয়েছে।’

ট্রাম্প আরও বলেন, ‘তুরস্ক আমাকে কথা দিয়েছে, তারা সিরিয়ায় অবস্থানকৃত কুর্দিদের ওপর আর হামলা চালাবে না এবং যুদ্ধবিরতির সময়সীমা স্থায়ী করে দেবে।’

তবে সিরিয়ার তেল স্থাপনা রক্ষায় স্বল্প সংখ্যক সৈন্য সিরিয়ায় অবস্থান করবে বলেও জানান তিনি।

রাশিয়া ও তুরস্কের চুক্তির পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এমন ঘোষণা দিল। এর আগে মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) ট্রাম্প এই চুক্তিকে বিশাল এক অর্জন বলে আখ্যায়িত করেন।

ট্রাম্পের ঘোষণার পর মার্কিন ট্রেজারি নিশ্চিত করেছে, ১৪ অক্টোবর তুরস্কের প্রতিরক্ষা ও জ্বালানি মন্ত্রণালয়গুলো এবং তুরস্কের তিন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের ওপর যে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছিল তা প্রত্যাহার করা হয়েছে। ফলে সিরিয়ায় শান্তি ফিরে আসবে বলে ধারণা করছেন বিশ্লেষকরা। এছাড়া বুধবার সিরিয়ার মানবিজ ও কোবান শহরে সৈন্য মোতায়েন করেছে রাশিয়া।

উল্লেখ্য, সিরিয়া থেকে মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহারের ঘোষণার পর থেকে সিরিয়ায় অবস্থিত কুর্দি বাহিনীর ওপর হামলা চালায় তুর্কি বাহিনী। জাতিসংঘের তথ্য মতে, হামলার পর থেকে এক লাখ ৭৬ হাজার লোক সিরিয়া থেকে পালিয়েছে। এর মধ্যে প্রায় ৮০ হাজার শিশু রয়েছে।

আর যুক্তরাজ্য ভিত্তিক মনিটরিং গ্রুপ সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটসের (এসওএইচআর) মতে তুর্কি হামলায় ২৫৯ জন কুর্দি যোদ্ধা, ১৯৬ জন তুর্কি সমর্থিত সিরিয় বিদ্রোহী এবং সাত তুর্কি সেনা নিহত হয়েছে। আর প্রায় ১২০ জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 তুরস্ক যুক্তরাষ্ট্র