banglanewspaper

ফরহাদ খান, নড়াইল: পদোন্নতি পেয়ে ডিআইজি (উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শক) হলেন নড়াইলের সন্তান শেখ নাজমুল আলম বিপিএম (বার), পিপিএম (বার)।

বৃহস্পতিবার (২৪ অক্টোবর) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের পুলিশ-১ অধিশাখার উপসচিব ধনঞ্জয় কুমার দাস স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে পদোন্নতির এই তথ্য জানানো হয়।

এছাড়া আরো সাত পুলিশ কর্মকর্তা ডিআইজি হয়েছেন। এর আগে নাজমুল আলম অতিরিক্ত ডিআইজি ছিলেন এবং ঢাকা মহানগর পুলিশের যুগ্মকমিশনার। 

ডিআইজি হিসেবে পদোন্নতি পেয়ে শেখ নাজমুল আলম তার ফেসবুক আইডিতে লিখেছেন, মহান রাব্বুল আল আমিনের অশেষ অনুগ্রহে উপ-পুলিশ মহাপরির্দশক (ডিআইজি) পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত হয়েছি। আলহামদুলিল্লাহ। আপনাদের প্রার্থনায় আমাকে রাখুন। 

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের গন্ডব গ্রামের সন্তান শেখ নাজমুল আলম ১৯৯৮ সালে ১৭তম বিসিএসে পুলিশ ক্যাডারে সুপারিশপ্রাপ্ত হয়ে কর্মজীবন শুরু করেন। পর্যায়ক্রমে তিনি নারায়ণগঞ্জ ও নেত্রকোনার পুলিশ সুপারের (এসপি) দায়িত্ব পালন করেন।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্সেরও (এসএসএফ) দায়িত্ব পালন করেছেন। এছাড়া কর্মজীবনে বিভিন্ন সময়ে ভোলা, পঞ্চগড়, সারদা পুলিশ একাডেমি ও মুন্সীগঞ্জ জেলায় চাকরি করেন তিনি। ২০১৩ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি ডিএমপিতে যোগদান করে একই বছরের ১ জুন ডিবিতে দায়িত্ব পান। 

এই পুলিশ কর্মকর্তা ২০০৫ ও ২০১২ সালে দুইবার পিপিএম পদক (প্রেসিডেন্ট পুলিশ মেডেল) এবং ২০১৫, ২০১৮ ও ২০১৯ সালে বিপিএম পদক (বাংলাদেশ পুলিশ মেডেল) অর্জন করেন।

শেখ নাজমুল আলম প্রায় দুই দশক যাবত পুলিশ বিভাগে ন্যায়নিষ্ঠা ও সুনামের সঙ্গে অনেক গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। তার যোগ্য নেতৃত্ব ও নির্দেশনায় কয়েকটি জঙ্গি আস্তানায় সফল অভিযান পরিচালিত করতে সক্ষম হন গোয়েন্দারা। এতে পরাস্ত হয় জঙ্গিরা। পেশাগত দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি অসহায় ও বিপদগ্রস্থ মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে ‘মানবতার সেবক’ হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।

শেখ নাজমুল আলম একদিকে যেমন দক্ষ পুলিশ কর্মকর্তা, অন্যদিকে তেমনি একজন মানবদরদী মানুষ, আদর্শ শিক্ষক ও ভাল প্রশিক্ষক। পাশাপাশি ভালো অভিভাবকও। এক সময় কলেজে শিক্ষকতাও করেছেন তিনি।

ট্যাগ: bdnewshour24 ডিআইজি নড়াইল নাজমুল আলম