banglanewspaper

মনির হোসেন জীবন, নিজস্ব প্রতিনিধি: ঢাকার ধামরাইয়ে স্ত্রীর সহায়তায় স্বামীর হাতে এক স্কুল ছাত্রী (১৩) ধর্ষণের শিকার হয়ে অন্তসত্ত্বা হয়ে পড়ার ঘটনায় এক ইউপি মেম্বারসহ ৭জনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন ভোক্তভোগী ওই স্কুল ছাত্রীর বাবা।

অভিযোগ পাওয়ার পর এরই মধ্যে অভিযুক্ত ধর্ষক মোকসেদ আলী (৫০) এর স্ত্রী উজালা বেগম (৪৫) কে আটক করেছে পুলিশ।ভোক্তভোগী স্থানীয় একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী।

শুক্রবার রাতে ভুক্তভোগী ওই স্কুল ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে ধামরাই থানায় ধর্ষক মোকছেদ আলী ও তার স্ত্রী উজলা বেগম এবং স্থানীয় এক ইউপি মেম্বারসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন। এরআগে গত ৩০শে জুলাই রাতে ওই স্কুল ছাত্রীকে টিভি দেখার কথা বলে ডেকে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে মোকসেদ আলী। আর এ ধর্ষণে সহযোগীতা করে তারই স্ত্রী উজালা বেগম। 

মামলায় আসামীরা হলো- ঢাকার ধামরাই উপজেলার আমতা ইউনিয়নের মুন্সীরচড় পশ্চিমপাড়া এলাকার মৃত সাধু বেপারীর ছেলে মো. মোকসেদ আলী (৫০), তার স্ত্রী উজালা বেগম (৪৫), আমতা ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার ও ওই এলাকার আব্দুল করিম মাষ্টারের ছেলে ফারুক হোসেন (৪৮), আলামিন (৪০), দরবার আলী (৬০), চান মিয়া (৫৫) ও সাংবাদিক পরিচয়দানকারী মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া থানাধীন চর সাটুরিয়া এলাকার জসিম (৫০)।

মামলার এজহার থেকে জানা যায়, গত ৩০ জুলাই মঙ্গলবার রাত আনুমানিক ৮টার দিকে টিভি দেখার কথা বলে ওই স্কুল ছাত্রীকে কৌশলে ডেকে নিয়ে যায় মোকসেদের স্ত্রী উজালা বেগম। এসময় পূর্বপরিকল্পিতভাবে ঘরে ঢুকার সাথে সাথেই ওই স্কুল ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে মোকসেদ আলী। এসময় তার স্ত্রী উজালা বেগম ওই স্কুল ছাত্রীর মুখ চেপে ধরে রাখে। পরে তাকে নানা ভয়ভিতী দেখিয়ে ছেড়ে দেয়। এরপর বিভিন্ন সময়ে ভয়ভিতী দেখিয়ে ওই স্কুল ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে মোকসেদ আলী।

একপর্যায়ে অন্তসত্ত্বা হয়ে পড়লে গত ২১অক্টোবর পরিবারের কাছে বিষয়টি খুলে বলে ভুক্তভোগী ওই স্কুল ছাত্রী।

এদিকে বিষয়টি ধাপা চাঁপা দিতে স্থানীয় ইউপি মেম্বার ফারুক হোসেন সহ কয়েকজন বিচারের নামে ১লাখ ৮০হাজার টাকা জরিমানা নেন ধর্ষকের কাছ থেকে এবং ঘটনায় চুপ থাকার হুমকি দেয় ভুক্তভোগী পরিবারকে।

ধামরাই থানার অফিসার ইনচার্জ দীপক চন্দ্র সাহা জানান, বিকৃত মানসিকতা থেকে এমন ঘৃনিত কাজে লিপ্ত হয়েছে ওই দম্পতি। ভুক্তভোগী পরিবার থানায় মামলা দায়ের করেছেন। অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত উজলা বেগমকে এরই মধ্যে গ্রেফতার করা হয়েছে। অভিযুক্ত বাকী আসামীদের গ্রেফতারে জোর চেষ্টা চলছে। 

এছাড়া স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ভুক্তভোগী ওই স্কুল ছাত্রীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি)তে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

ট্যাগ: bdnewshour24 স্ত্রী স্কুলছাত্রী