banglanewspaper

কুমিল্লা প্রতিনিধি: "শেখ হাসিনার সহায়তায়, তথ্য আপা পথ দেখায়" প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলায় তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে নারীদের জীবন মানের উন্নয়নে উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৯ অক্টোবর) সকালে উপজেলার শশিদল ইউনিয়নের নাগাইশ গ্রামে তথ্য আপা প্রকল্পের উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব ফৌজিয়া সিদ্দিকা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মৎস কর্মকর্তা জনাব লিসমা হাসান, উপজেলা তথ্য কেন্দ্রের তথ্যসেবা কর্মকর্তা মোছাঃ মুনিরা বেগম, তথ্যসেবা সহকারী রীনা আক্তার, হালিমা আক্তার এবং গ্রামের ৫০ জন উদ্যোগী মহিলা।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব ফৌজিয়া সিদ্দিকা উপস্থিত নারীদের তথ্য কেন্দ্রে গিয়ে তথ্য প্রযুক্তির সেবা নিতে উৎসাহ প্রদান করেন। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার নারী পুরুষের সম অধিকার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। সরকারের এসব সুবিধা গ্রহণ করতে নারীদেরও এগিয়ে আসতে হবে। সেই সঙ্গে বাল্য বিবাহ ও মাদকের মতো সামাজিক ব্যাধির বিরুদ্ধে নারীদের ভূমিকা পালনেরও আহবান জানান তিনি।  

উপজেলা মৎস কর্মকর্তা জনাব লিসমা হাসান কর্মক্ষেত্রে পুরুষের পাশাপাশি নারীদের প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করতে কাজ করার আহবান জানান। তিনি বলেন, পুরুষের পক্ষেএকা সমাজ ও দেশের অর্থনৈতিক মুক্তি সম্ভব নয়। তাই পুরুষের পাশাপাশি কর্মক্ষেত্রে নারীদের এগিয়ে আসতে হবে৷ সরকার কর্মক্ষেত্রে নারীর প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করতে নানা পদক্ষেপ হাতে নিয়েছে। সমাজের অর্ধেক জনসংখ্যাই নারী। তাই নারীরা যদি সঠিক প্রশিক্ষণ গ্রহণের মাধ্যমে তথ্য প্রযুক্তির সেবা নিয়ে কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ করতে পারে তাহলে দেশ দ্রুত এগিয়ে যাবে।

তথ্য কেন্দ্রের তথ্য সেবা কর্মকর্তা মোছাঃ মুনিরা বেগম এসময় উপস্থিত নারীদের তথ্য আপা প্রকল্পের সেবা সমূহ তুলে ধরেন। তিনি জানান, তথ্য কেন্দ্রের মাধ্যমে নারীদের বিনামূল্যে ইন্টারনেট ব্যবহার ও ওয়েবসাইট ব্রাউজ সম্পর্কে সচেতন করা হয়। এ ছাড়াও স্কাইপে কথা বলা, পরীক্ষার ফলাফল দেখা, চাকরি সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য জানা, সরকারি সেবা সম্পর্কে অবহিত করা, সরকারি সেবা প্রদানকারী অফিসের সঙ্গে যোগাযোগ করে সেবা প্রদান নিশ্চিত করা হয়।
এ ছাড়া প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা সম্পর্কে গ্রামীণ মহিলাদের সচেতন করা হয়। সেবাকেন্দ্র থেকে বিনামূল্যে ওজন মাপা, প্রেশার মাপা ও ডায়াবেটিস মাপা হয়। এ ছাড়াও তথ্যকেন্দ্রে মহিলা সংক্রান্ত বিভিন্ন সমস্যা, অভিযোগ, মতামত কর্তৃপক্ষের কাছে প্রেরণ করা হয়। এসব সেবা নিতে তিনি নারীদের তথ্য কেন্দ্রে আসার জন্য আহবান জানান। 

জানা যায়, প্রতিটি উঠান বৈঠকে ৫০ জন গ্রামীণ মহিলা অংশগ্রহণ করে থাকেন। মাসে প্রতিটি তথ্যকেন্দ্র দুটি করে উঠান বৈঠকের আয়োজন করে থাকে। ইউএনও, কৃষি, শিক্ষা, মৎস্য, স্বাস্থ্য কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন সরকারি কর্মকর্তা ও সরকারি আইসিটি বিশেষজ্ঞ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে রিসোর্স পারসন হিসেবে উঠান বৈঠকে উপস্থিত থেকে আলোচনা করে থাকেন।

এছাড়া স্থানীয় নারী উদ্যোক্তা, নারী আইনজ্ঞ, সমাজসেবী, সাংবাদিক, সমাজের নেতৃত্বদানকারী মহিলারাও বিভিন্ন সামাজিক সমস্যা যেমন বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ, যৌতুক নিরোধ আইন, পারিবারিক সহিংসতা এবং নারীনীতি সম্পর্কে মুক্ত আলোচনা করেন।

ট্যাগ: bdnewshour24 কুমিল্লা