banglanewspaper

প্রথম বাংলাদেশি বোলার হিসেবে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে তিনিই প্রথম ৫শ উইকেটের অনন্য মাইলফলকটি ছুঁয়েছিলেন। নিজেকে ছাড়িয়ে যাওয়ার অদম্য নেশায় উন্মত্ত অভিজ্ঞ বাঁহাতি সেই স্পিনারই এবার ছুঁলেন ৬শ উইকেটের মাইলফলক। বুঝতে পারছেন নিশ্চয়ই কার কথা বলছি? হ্যাঁ, তিনি আব্দুর রাজ্জাক। চলমান জাতীয় ক্রিকেট লিগের ষষ্ঠ রাউন্ডে নিজেকে যিনি অনন্য এই উচ্চতায় নিয়ে গেছেন।

বাংলাদেশি বোলারদের মধ্যে ৫শ উইকেট আর কারও নেই। ৪৭৭ উইকেট নিয়ে রাজ্জাকের পরে আছেন এনামুল হক জুনিয়র।

শনিবার (২ নভেম্বর) মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে রংপুর বিভাগের বিপক্ষে ম্যাচে ৬শ উইকেট থেকে ৬ উইকেট দূরে থেকে বল হাতে নেমেছিলেন রাজ্জাক। চার দিনের সেই ম্যাচে সফল হয়েছেন প্রথম দিনেই। ঘূর্ণি বিষে একে একে নীল করেছেন রংপুরের ৭ ব্যাটসম্যানকে!

প্রথম শিকার ছিলেন ওপেনার মেহেদি মারুফ। ব্যক্তিগত ২৬ রানে তাকে পাঠিয়েছেন উইকেট রক্ষক নূরুল হাসান সোহানের নিরাপদ গ্লাভসে। দ্বিতীয় শিকার মিডল অর্ডার নাসির হোসেন। ৪০ রান করে যখন খুলনার বোলারদের চোখ রাঙানি দিচ্ছিলেন ঠিক তখনই তার স্ট্যাম্পে আঘাত হানেন রাজ্জাক।

এরপর আরিফুল হককে ২৭, ধীমান ঘোষ, সাজেদুল ইসলামকে ০ ও রবিউল ইসলামকে ৭ রানে ড্রেসিংরুমের পথ দেখিয়ে ৬শ উইকেটের ল্যান্ডমার্কে পা রাখেন রাজ্জাক। সপ্তম শিকার ছিলেন রিশাদ হোসেন। ৩২ বলে ৪২ রান করে ঝড়ো ব্যাটিংয়ের পূর্বাভাস দেওয়া এই লেগিকে ক্লিন বোল্ড করে ক্রিজ ছাড়া করেন।

তার এই স্পিন ঘূর্ণিতেই তছনছ হয়ে গেছে রংপুরের ব্যাটিং ইনিংস। প্রথম ইনিংসে ২২৪ রানে লিখতে হয়েছে নিজেদের এপিটাফ।

বাকি ৩ উইকেটের দুটি নিয়েছেন মেহেদি হাসান ও ১টি ছিল আব্দুল হালিমের দখলে।

এদিকে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে দিন শেষে ২ উইকেটে ২৪ রান সংগ্রহ করেছে খুলনা বিভাগ। রবিউল হকের বলে রিশাদ হোসনের তালুবন্দি হয়ে ৬ রানে ফিরেছেন ভারত সিরিজে টেস্ট দলে ডাক পাওয়া ইমরুল কায়েস। অপর শিকার মইনুল ইসলামকেও ২ রানে ফেরৎ পাঠিয়েছেন রবিউল।

দিন শেষে ১৪ রানে অপরাজিত আছেন এনামুল হক বিজয় ও তুষার ইমরান অপরাজিত আছেন ১ রানে।

ট্যাগ: bdnewshour24 রাজ্জাক