banglanewspaper

নাজমুস সাকিব মুন, পঞ্চগড় প্রতিনিধি: পঞ্চগড় সদর উপজেলার হাফিজাবাদ ইউনিয়নের সর্দারপাড়া এলাকায় বাড়ির পাশে ধানক্ষেত থেকে কল্পনা আক্তার (২৫) নামে এক গৃহবধূর গলাকাটা মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এই ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্বামী মুনিরসহ তার শ্বশুর ও শ্বাশুরিকে আটক করেছে পুলিশ। 

রবিবার (৩ নভেম্বর) দুপুরে একই এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। এইদিকে নিহতের পরিবারের দাবি কল্পনাকে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে। 

নিহতের ভাই হযরত আলী  জানান, ‘আমার বোনকে পরিকল্পিতভাবে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। স্বামীর পরিবারের সাথে তার পারিবারিক কলহ ছিল। ছয় দিন আগে মিমাংসা করা হয়েছিল। এরই মধ্যে তাকে হত্যা করা হয়েছে। এজন্য আমরা মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।'

পঞ্চগড় সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু আককাছ আহম্মদ জানান, গৃহবধুর গলাকাটা লাশ উদ্ধারের ঘটনায় নিহত কল্পনার শ্বশুর, শ্বাশুরি ও স্বামী মনিরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়েছে। লাশের সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে।।

পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানায়, পারিবারিক কলহের জের ধরে কল্পনা আক্তার কিছু দিন আগে ওই উপজেলার মাড়েয়া ইউনিয়নের কালুয়াখাল এলাকায় বাবার বাড়িতে চলে যান। গত ৬ দিন আগে দুই পরিবারের সমঝোতার মাধ্যমে কল্পনাকে নিয়ে আসেন তার স্বামী মনির।

ট্যাগ: bdnewshour24 পঞ্চগড়