banglanewspaper

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এর প্রভাবে সেন্টমার্টিন দ্বীপ ভ্রমণে এসে আটকা পড়া ১২০০ পর্যটককে আনতে তিনটি জাহাজ টেকনাফ থেকে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশে রওনা দিয়েছে। আশা করা হচ্ছে বিকেলেই তারা টেকনাফে পৌঁছাবেন।

সোমবার (১১ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টায় টেকনাফের দমদয়িা ঘাট থেকে কেয়ারি ক্রুজ অ্যান্ড ডাইন, ফরহান ও আটলান্টিক ক্রুজ নামের তিনটি জাহাজ সেন্টমার্টিনের উদ্দেশে রওনা দেয়।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) টেকনাফ অঞ্চলের সমন্বয় কর্মকর্তা আমজাদ হোসেন জানান, ‘ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’-এর প্রভাব অনেকটা স্বাভাবিক হয়ে আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌরুটে পর্যটকবাহী জাহাজসহ সব ধরনের নৌযান চলাচল শুরু হয়েছে। আর তাই সেন্টমার্টিন দ্বীপে আটকা পড়া পর্যটকদের নিয়ে আসতে সকালে তিনটি জাহাজ পাঠানো হয়েছে।

সেন্টমার্টিন ইউপি চেয়ারম্যান নুর আহমদ বলেন, ‘দ্বীপে আটকা পড়া পর্যটকদের নিয়ে যাবার জন্য টেকনাফ থেকে তিনটি জাহাজ সেন্টমার্টিন উদ্দেশে রওনা দিয়েছে। আটকা পড়া পর্যটকদের সার্বক্ষাণিক খোঁজ নেওয়া হয়েছিল। এমন কি তাদের থাকা-খাওয়ার ডিসকাউন্ট দেওয়া হয়। তবে দুঃখের বিষয় দ্বীপের কয়েশ লোক টেকনাফে আটকা পড়লেও তাদের কেউ কোনো খোঁজ-খবর নেয়নি।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘সেন্টমার্টিন দ্বীপে আটকা পড়া পর্যটকদের আনতে তিনটি জাহাজ পাঠানো হয়েছে। বিকেলে পর্যটকদের নিয়ে জাহাজগুলো টেকনাফ ঘাটে পৌছানোর কথা রয়েছে।’

ট্যাগ: bdnewshour24 সেন্টমার্টিন