banglanewspaper

ইন্দোরে ১ম ইনিংসে ৩৪৩ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস খেলছে বাংলাদেশ। চলছে খেলার তৃতীয় দিন। এই রিপোর্ট লেখা অবধি বাংলাদেশের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ১৯১ রান। বাংলাদেশ পিছিয়ে রয়েছে ১৫২ রানে। উইকেটে আছেন মুশফিকুর রহিম (৫৩) এবং মেহেদী মিরাজ (৩৮)।

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই হোঁচট খায় বাংলাদেশ। দলীয় ১০ রানে ওপেনার ইমরুল কায়েস ৬ রানে ফিরে যান সাজঘরে। ভারতের হয়ে দিনের প্রথম আঘাত হানেন যাদব।

ইমরুলের ফেরাটা যেন মেনে নিতে পারলেন না সাদমান। তাঁর পরপরই ইশান্ত শর্মার শিকারে পরিণত হয়ে ফিরে যান এই ওপেনার।

উইকেটে নেমে থিতু হতে না হতেই বিদায় নেন অধিনায়ক মমিনুল হক। ৭ রানে তাকে তাকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেন মোহাম্মদ সামি। ফলে ৩৭ রানে তিন ওপেনার নেই বাংলাদেশের।

দলীয় ৪৪ রানে বাংলাদেশ শিবিরে আবারো আঘাত হানেন  সামি। মোহাম্মদ মিঠুনকে ১৮ রানে আগারওয়ালের তালুবন্দি করান এই পেসার।

মুশফিককে সাথে নিয়ে দলের হাল ধরার চেষ্টা করেন মাহমুদউল্লাহ। তবে তাকেও ব্যর্থ হয়ে ফেরত যেতে হয়। এবারও আঘাত হানেন সামি। ১৫ রানে রিয়াদকে নিজের তৃতীয় শিকারে পরিণত করেন তিনি।

এরপর মাঠে নামেন লিটন দাস। নেমেই শুরু করেন আক্রমণাত্মক ক্রিকেট। মুশফিককে সাথে নিয়ে হাল ধরেন দলের। গড়েন ইনিংসের প্রথম ৫০ রানের পার্টনারশিপ। কিন্তু আশ্বিনের শিকার হয়ে ৩৫ রানে ইনিংসের সমাপ্তি টানেন এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান।

এরপর মিরাজকে নিয়ে লড়াই চালিয়ে যেতে থাকেন মুশফিক। ৫০ রানের জুটি গড়ার পাশাপাশি তুলে নেন ক্যারিয়ারের ২০ তম হাফ সেঞ্চুরি।

১ম ইনিংসে সবক'টি উইকেট হারিয়ে সফরকারিরা সংগ্রহ করে ১৫০ রান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে দ্বিতীয় দিন শেষে ভারত তোলে ৬ উইকেটের বিনিময়ে ৪৯৩ রান।

ভারতের হয়ে নিজের ক্যারিয়ারের সেরা ইনিংস খেলেন ওপেনার মায়াঙ্ক আগারওয়াল। ব্যক্তিগত ২৪৩ রানে আবু জায়েদ রাহীর শিকার হয়ে ফিরে যান তিনি। বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ চারটি উইকেট তুলে নেন আবু জায়েদ রাহী। আর বাকি দুই উইকেটের মধ্যে পেসার এবাদত নেন একটি এবং মেহেদী হাসান মিরাজ নেন একটি উইকেট।

ট্যাগ: bdnewshour24 মুশফিক