banglanewspaper

বাংলাদেশ-পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে আসা সবাই ভারতের নাগরিকত্ব পাবে না শুধুমাত্র মুসলিম ছাড়া বাকি সবাইকে নাগরিকত্ব দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও ক্ষমতাসীন বিজেপির সভাপতি অমিত শাহ।

বুধবার (২০ নভেম্বর) দেশটির রাজ্যসভায় বিভিন্ন সাংসদের প্রশ্নোত্তর পর্বে তিনি একথা জানান।

অমিত শাহ বলেন, ‘হিন্দু, বৌদ্ধ, জৈন, খ্রিস্টান, পার্সি রিফিউজিদের নাগরিকত্ব পাওয়া উচিত। সেই কারণেই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল আনা হয়েছে, যাতে পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানে যারা ধর্মীয় কারণে অত্যাচারিত ও অবহেলিত, তারা ভারতীয় নাগরিকত্ব পাবেন।’

হিন্দু, খ্রিস্টানসহ বাকিদের নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বললেও অমিত শাহ কেন মুসলিমদের এড়িয়ে গেলেন, তা জানতে চান এনসিপি সাংসদ সৈয়দ নাসির হুসেন। 

জবাবে অমিত শাহ বলেন, ‘আপনি এনআরসি ও নাগরিক সংশোধনী বিলের মধ্যে পার্থক্য গুলিয়ে ফেলছেন। এনআরসি তৈরির ক্ষেত্রে কোনো ধর্মকে নিশানা করা হয়নি। সুপ্রিম কোর্টের তদারকিতেই সবকিছু হয়েছে। ধর্মীয় বিশ্বাস যাই হোক না কেন, দেশের সব নাগরিকেরই নাম নথিভুক্ত হবে এনআরসি তালিকায়। দেশের সর্বত্র এনআরসি হবে। তবে এ নিয়ে দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই। সকলকে এনআরসির আওতায় আনতেই এই প্রক্রিয়া।’

আসামসহ গোটা দেশেই এনআরসি হবে বলে এদিন স্পষ্ট জানিয়েছেন ক্ষমতাসীন হিন্দ্যুুত্ববাদী বিজেপিপ্রধান।

আসমে এনআরসি’র পরে অভিযোগ উঠছে, বহু মানুষের বৈধ নথি থাকা সত্তেও এনআরসিতে নাম নেই! তারা আইনি জটিলতায় হয়রানি হচ্ছে।

এমন প্রসঙ্গে অমিত শাহ বলেন, 'অসমে যাদের নাম বাদ গিয়েছে এনআরসি তালিকায়, তারা ট্রাইবুনালে আপিল করতে পারেন। যাদের আইনি লড়াই লড়ার টাকা নেই, তাদের আর্থিক সাহায্য করবে অসম সরকার।

ট্যাগ: bdnewshour24 মুসলিম বিদেশি সংখ্যালঘুরা