banglanewspaper

আকাশপথে পাকিস্তান থেকে এলো পেঁয়াজ। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় করাচি থেকে পেঁয়াজের চালানটি ঢাকায় আসে।

সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে সিল্কওয়ে এয়ারলাইনসের একটি কার্গো উড়োজাহাজে করে পেঁয়াজের চালানটি ঢাকায় পৌঁছায়। সিভিল এভিয়েশনের পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন এ এইচ এম তৌহিদ-উল-আহসান এ কথা জানান। বার্তা সংস্থা ইউএনবি ওই তথ্য জানিয়েছে।

জানা যায়, ওই চালানে ৮১ টন ৫০০ কেজি পেঁয়াজ আনা হয়েছে। চালানটি আমদানি করেছে শাদ এন্টারপ্রাইজ।

বুধবার দিবাগত রাতে সৌদি এয়ারলাইনসের একটি কার্গো উড়োজাহাজ ঢাকায় পৌঁছাবে। ওই কার্গো উড়োজাহাজে মিসর থেকে আসবে পেঁয়াজ।

গত মঙ্গলবার বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি জানান ৫০ হাজার টন পেঁয়াজ আমদানি করা হচ্ছে। পেঁয়াজ সংকট নিরসনেই ওই উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।

গত সেপ্টেম্বর মাসে বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয় ভারত। এরপরই এর প্রভাব পড়তে থাকে বাজারে। চলতি মাসে প্রতি কেজি ২৬০ টাকা পর্যন্ত হয়ে যায় পেঁয়াজের দাম। সরকার টিসিবির মাধ্যমে বাজারে ৪৫ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি করে।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি গতকাল মঙ্গলবার বলেন, ‘পেঁয়াজের দাম কমে গেছে। কাল-পরশু আরো কমে যাবে। কার্গো উড়োজাহাজ কাল (বুধবার) রাতে আসবে। আজ (মঙ্গলবার) আসার কথা ছিল। লোড করতে কিছুটা সময় লাগছে। ২০ নভেম্বর থেকে ২৫ নভেম্বর পর্যন্ত প্রতিদিন একটা করে কার্গো উড়োজাহাজ আসবে।’

টিপু মুনশি বলেন, ‘গত ১৩ সেপ্টেম্বর ভারত আমাদের দেশে পেঁয়াজ রপ্তানি মূল্য বাড়িয়ে দেয়। ওই দিন আমরা নানা উদ্যোগ নেই। ২৯ সেপ্টেম্বর ভারত আমাদের দেশে পেঁয়াজ রপ্তানি পুরোপুরি বন্ধ করে দেয়। এতে সংকট তৈরি হয়। দাম বাড়লেও এতটা বাড়ার কথা ছিল না। ব্যবসায়ীরা কারসাজি করে অধিক মুনাফার জন্য অতিরিক্ত দাম বাড়িয়ে দিয়েছে।’

ট্যাগ: bdnewshour24 পেঁয়াজ