banglanewspaper

কেন্দুয়া (নেত্রকোণা) প্রতিনিধি: নেত্রকোণার কেন্দুয়ায় বিনা উদ্ভাবিত স্বল্প জীবনকাল ও উচ্চ ফলনশীল বিনাধান-১৭ এর মাঠ দিবস ও কৃষক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

২২ নভেম্বর ময়মনসিংহের ‘বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা)’আয়োজনে ও হাওড়,চর,দক্ষিনাঞ্চল কর্মসূচির অর্থায়নে এ প্রশিক্ষণ কর্মশালায় উপজেলার গন্ডা ইউনিয়ন ও রোয়াইলবাড়ি ইউনিয়নে পৃথকভাবে অনুষ্ঠিত হয়।

এতে উভয় ইউনিয়নের শতাধিক কৃষক প্রশিক্ষণে অংশ গ্রহনের সুযোগ পায়। বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) পরিচালক (প্রশিক্ষণ ও পরিকল্পনা) ড. মো. জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মহাপরিচালক ড.বীরেশ কুমার গোস্বামী।

এসময় অন্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন মূখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. আব্দুল মালেক, ড. মো. হোসেন আলী,সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম,উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা নুজরুল ইসলাম প্রমূখ। প্রধান অতিথি বলেন-প্রচলিত জাতের ধান চাষে ১২৫ থেকে ৩০ দিন সময় লাগে সেখানে স্বল্প জীবনকাল উদ্ভাবিত বিনাধান-১৭ চাষে সময় লাগে ১১২ থেকে ১৮ দিন। আলোক অসংবেদনশীল উন্নত গুণাগুণ সম্পন্ন আমন ধানের এ জাত চাষে সার কম লাগে এবং অধিক ফলনশীল।

বিনা-১৭ ধান জুলাই মাসের ২য় সপ্তাহে বীজবপন করে সেপ্টেম্বর মাসের শেষে নাগাত ফসল ঘরে তোলা যায়। স্বল্প সময়ে এ ধরনের আগাম ধান কর্তনের ফলে প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও রোগ পোকামাকড়ের আক্রমণ থেকে রক্ষাসহ জমিতে বছরে ৩/৪টি ফসল উৎপাদন করা সম্ভব।

এবার কেন্দুয়া উপজেলায় শতাধিক কৃষক এই জাতের ধান চাষ করে ভাল ফসল ঘরে তুলছেন। তারা সফল হওয়ায় আগামীতে এ ধান চাষে আগ্রহ দেখাচ্ছে স্থানীয় কৃষকরা। পরে কৃষকদের মাঝে বিনা মূল্যে সরিষা বীজ ও লেবু গাছে ছাড়া বিতরণ করা হয়।

ট্যাগ: bdnewshour24 কেন্দুয়া