banglanewspaper

রাজধানী ঢাকায় শুরু হয়েছে ১৮তম এশিয়ান ইউনিভার্সিটি প্রেসিডেন্টস ফোরাম-২০১৯ (এইউপিএফ)। শনিবার (২৩ নভেম্বর) দুপুরে রাজধানীর র‍্যাডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেন হোটেলের গ্র্যান্ড বল রুমে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো এ আয়োজন করা হলো।

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি এবং বাংলাদেশ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির সহযোগিতায় সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তিন দিনব্যাপী এই সম্মেলনের প্রতিপাদ্য হচ্ছে,  ‘উদ্যোক্তা শিক্ষার ভবিষ্যৎ ও অভিজ্ঞতালব্ধ জ্ঞান: এশিয়ার অর্থনীতিতে সফল উদ্যোক্তা উন্নয়নের পরিবেশ তৈরির নিয়ামকসমূহ।’

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দীপু মনি বলেন,  ‘বিশ্ব এখন দ্রুতগতিতে পরিবর্তিত হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের শেখার কৌশল না শেখালে আগামীতে যে বাস্তবতার সম্মুখীন তারা হবে, তাতে টিকে থাকতে পারবে না। এশিয়ার অর্থনীতি অনেক এগিয়েছে। মানুষ বলে ২১ শতক হবে এশিয়ার শতক। এজন্য আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থাকে সেভাবে প্রস্তুত করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা প্রতিনিয়ত শুনতে পাই আমাদের গ্র্যাজুয়েটরা চাকরি পেতে ব্যর্থ হচ্ছে। চাকরিদাতাদের অভিযোগ, তারা যোগ্যতাসম্পন্ন প্রার্থী পাচ্ছেন না। এজন্যই আমাদের একে-অপরের সহায়তা প্রয়োজন। যাতে অমিল দূর হয়।’

সূচনা বক্তব্যে এইউপিএফ-এর স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্য ও ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ড. সবুর খান বলেন, ‘এইউপিএফের সহযোগিতা আমাদের দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে সম্প্রীতি বাড়াবে। আপনারা জেনে খুশি হবেন বাংলাদেশ সরকারসহ পুরো বিশ্ব এখন উদ্যোক্তা তৈরিতে বিশ্বাসী। মালয়েশিয়া সরকার তাদের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে ২০৩০ সালের মধ্যে কি পয়েন্ট ইনডিকেটর (কেপিআই) নির্ধারণ করতে বলছে। ফলে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো কেপিআই’র ১৮ শতাংশ উদ্যাক্তা তৈরি করতে বাধ্য থাকবে। না করতে পারলে সরকার ভর্তুকি দেওয়া বন্ধ করে দেবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আশা করি আগামী বছর বাংলাদেশ থেকে এই সম্মেলনে আরও বেশি বিশ্ববিদ্যালয় অংশগ্রহণ করবে। বাংলাদেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুব ভালো করছে। যারা ভালো করছে তাদের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে একটি নীতিমালা প্রণয়ন করা প্রয়োজন। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে আশা উচিত, তাদের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলা উচিত।’

সম্মেলনে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বেইবার্স আলতুনাস। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এইউপিএফ ২০১৯-এর আহ্বায়ক ও ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোভিসি ড. এস এম মাহবুবুল হক মজুমদার। 

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ কোরিয়ার ডংসে ইউনিভার্সিটির প্রেসিডেন্ট জেকুক চ্যান, ভারতের ভেলর ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস প্রেসিডেন্ট শংকর বিশ্বনাথন, চীনের গয়াংডং ইউনিভার্সিটি অব ফরেন স্টাডিজের ভাইস ডিরেক্টর মিস লুলু, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির চেয়ারম্যান শেখ কবির হোসেনের পক্ষে ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. আবদুল মান্নান চৌধুরী প্রমুখ।

তিনদিনব্যাপী এই সম্মেলনের সমাপনী অনুষ্ঠান হবে ২৪ নভেম্বর সকাল ১০টায় ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির আশুলিয়ায় স্থায়ী ক্যাম্পাসের স্বাধীনতা মিলনায়তনে।

প্রসঙ্গত,  চীন ও থাইল্যান্ডের উচ্চশিক্ষার প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে একটি বন্ধুত্বপূর্ণ ও সহযোগিতাপূর্ণ সম্পর্ক থেকে ১৯৯৯ সালে এইউপিএফ’র যাত্রা শুরু করে।

 

ট্যাগ: bdnewshour24 এশিয়ান ইউনিভার্সিটি প্রেসিডেন্টস ফোরাম