banglanewspaper

মানসিক ভারসাম্যহীন দুই কিশোরীকে অসুস্থতা থেকে মুক্ত করার জন্য রিহ্যাব সেন্টারে পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু সেখানে একই ঘরে থাকা অপর এক তরুণীকে গলা টিপে হত্যা করেছে তারা।

ভারতের মহারাষ্ট্রের থানে জেলার কল্যাণ এলাকার একটি রিহ্যাবে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত দুই কিশোরী ইসা পান্ডে ও বিশাখা কোঠারেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) সকালে কল্যাণ থানার পুলিশ জানায়, কিশোরী সাওয়ান্ত নামে ৩২ বছরের এক তরুণীকে থানের কল্যাণ এলাকার একটি রিহ্যাব সেন্টারে ভরতি করেছিল তার পরিবার। মঙ্গলবার তারা জানতে পারে কিশোরীর মৃত্যু হয়েছে।

এরপর ওই রিহ্যাব সেন্টার থেকে মৃতদেহ নিয়ে গিয়ে শেষকৃত্যের কাজ সম্পন্ন করা হয়। কিন্তু, ফের ওই রিহ্যাবে ফেরত আসার পর তারা জানতে পারে কিশোরী সাওয়ান্তকে গলা টিপে খুন করেছে ওখানকার দুই আবাসিক কিশোরী।

বুধবার এ বিষয়ে অভিযোগ দায়ের হওয়ার পরেই ওই দুই কিশোরীকে গ্রেপ্তার করে হত্যা মামলা দায়ের করে পুলিশ।

প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে, অভিযুক্ত ইসা পান্ডে ও বিশাখা কোঠারে কিশোরীর সঙ্গে ওই রিহ্যাব সেন্টারে একসঙ্গে থাকত। কোনও কারণে অভিযুক্ত যুবতীদের মনে হয়েছিল কিশোরীকে খুন করতে পারলেই রিহ্যাব সেন্টার থেকে মু্ক্তি পাবে তারা। সে কারণেই গত সোমবার ওই যুবতীর গলা টিপে ধরে।

বিষয়টি দেখতে পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে কিশোরীকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। মঙ্গলবার সেখানেই মৃত্যু হয় তার।

এদিকে এই ঘটনার জন্য রিহ্যাব সেন্টার কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধেও অভিযোগের আঙুল তুলেছে মৃতের পরিবার। তাদের উদাসীনতার জন্যই এই ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি তাদের।

ট্যাগ: bdnewshour24 কিশোরী তরুণী