banglanewspaper

কোনো পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই প্রথমবারের মতো আফগানিস্তানে এক আকস্মিক সফরে গেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। দেশটিতে মোতায়েন মার্কিন সেনাদের প্রতি ধন্যবাদ জানাতেই তার এই সফর। 

বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, গত বৃহস্পতিবার ‘থ্যাংকস গিভিং ডে’- তে আফগানিস্তানে নিযুক্ত মার্কিন সৈন্যদের প্রতি ধন্যবাদ জানাতে দেশটিতে আকস্মিক সফরে যান ডোনাল্ড ট্রাম্প। স্থানীয় সময় রাত আনুমানিক সাড়ে আটটার সময় তিনি বিমানবন্দরে অবতরণ করেন।

ট্রাম্পের কয়েকজন উপদেষ্টাসহ প্রেসিডেন্টকে স্বাগত জানান মার্কিন জয়েন্ট চিফস চেয়ারম্যান মার্ক মিলে। সৈন্যদের সঙ্গে ছবি তোলা, চারপাশ পরিদর্শন ও নৈশভোজ করেন। তারপর মধ্যরাতেই নিজ দেশে ফিরে যান ট্রাম্প।  

রাজধানী কাবুলের পাশেই অবস্থিত বাগরাম বিমানঘাঁটিতে ট্রাম্প তালেবানের সঙ্গে আলোচনা সম্পর্কে বলেন, ‘আমরা তাদের (তালেবান) সঙ্গে বৈঠক করেছি এবং তাদের আমরা বলেছি যুদ্ধবিরতি করতে হবে কিন্তু তখন তারা যুদ্ধবিরতি চাচ্ছিল না। তবে এখন তারা যুদ্ধবিরতি চায়। আমি বিশ্বাস করি এটা সম্ভবত সেভাবে কার্যকর হবে।’

আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানির সঙ্গে বৈঠকও করেছেন ট্রাম্প। এছাড়া দেশটি থেকে আরো মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহারেরও ঘোষণা দেন ট্রাম্প।

২০০১ সালে টুইন টাওয়ারে হামলার পর আফগানিস্তানে সামরিক অভিযান শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র। ১৮ বছরের ওই যুদ্ধে এখনো দেশটিতে প্রায় ১৩ হাজার মার্কিন সেনা মোতায়েন রয়েছে।

ট্রাম্প এমন সময়ে এই সফরে গেলেন যার কয়েকদিন আগেই তালেবানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের শান্তি আলোচনা পুনরায় শুরু করার লক্ষ্যে বন্দিবিনিময় হয়েছে। চলতি মাসের শুরুতে ২০১৬ সালে আটক দুজন পশ্চিমা শিক্ষাবিদকে মুক্ত করে দেয় তালেবান। বদলে তাদের তিনজন যোদ্ধাও মুক্ত হন। তালেবানও কাতারে শান্তি আলোচনার কথা বলেছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 সৈন্য আফগানিস্তান ট্রাম্প