banglanewspaper

বশেমুরবিপ্রবি: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি পদত্যাগের পর থেকে বিভিন্ন শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের গোপনীয় নথি আইন বহির্ভূতভাবে একের পর এক প্রকাশ করা হচ্ছে। এ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সদস্যরা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ এ সব নথি ছড়িয়ে পড়ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক সহ বিভিন্ন মাধ্যমে। এতে করে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। অথচ এসব গোপনীয় নথী জনসম্মুখে প্রকাশ করা কতটা যৌক্তিক এমন প্রশ্নের জবাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার জনাব নুরউদ্দিন আহমেদ উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, হরহামেশা একটি প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন গোপনীয় নথী জনসম্মুখে প্রকাশ করা সেই প্রতিষ্ঠানের জন্য অশনি সংকেত বহন করে।

এই ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের অন্যান্ন সদস্যরা। তারা মনে করেন, যেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ব্যক্তিগত ফাইল সুরক্ষিত নয়, সেখানে গোটা বিশ্ববিদ্যালয় কতটা অরক্ষিত সেটারই ইঙ্গিত বহন করে।

এ বিষয়ে গনিত বিভাগের শিক্ষক তরিকুল ইসলাম বলেন “তথ্য জানার অধিকার সবার আছে কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের মত জায়গায় শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ব্যক্তিগত ফাইলের সম্পুর্ন/আংশিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পরা অত্যন্ত উদ্বেগজনক। একটা বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার দপ্তর/অন্য কোন দপ্তরের ফাইগুলো এতটা অনিরাপদ থাকতে পারে এটা সত্যিই অকল্পনীয়। এর পিছনে ভিন্ন কোন উদ্দেশ্য আছে কিনা বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষের নজরে আনা জরুরি।”

উল্লেখ্য, সাবেক ভিসি নাসিরুদ্দিন খন্দকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন চলাকালীন সময় অনেক গুরুত্বপূর্ণ নথি বেরিয়ে আসে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। যে কোন পরিস্থিতিতে একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ নথি কিভাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আসে সে বিষয়ে লক্ষ্য রাখার আহবান জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মন্ডলি।

ট্যাগ: bdnewshour24 বশেমুরবিপ্রবি