banglanewspaper

দলের নেতাকর্মীদের সৎভাবে জীবনযাপন করার তাগিদ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, সন্ত্রাস, মাদক ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে চলমান অভিযান চলবে। জনগণের টাকা কারও ভোগবিলাসের জন্য ব্যবহার করতে দেয়া হবে না। মনে রাখতে হবে অবৈধ, চোরা টাকায় বিরিয়ানি-পোলাও খাওয়া সম্মানের নয়। সৎ টাকায় সাধাসিধে জীবনযাপন করা সম্মানের।’

শনিবার দুপুরে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ উত্তর ও দক্ষিণের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে শেখ হাসিনা বলেন, ‘সবসময় মনে রাখতে হবে বিএনপি, জাতীয় পার্টির মত দলগুলো অবৈধভাবে হত্যা, ক্যূর মধ্য দিয়ে জন্ম হয়েছে। এরা মাটি থেকে উঠে আসেনি। তারা সুবিধাভোগী, খাওয়া পার্টি। মানুষকে কিছু দিতে পারে না। কিন্তু আওয়ামী লীগের তো একটা লক্ষ্য উদ্দেশ্য আছে। জনগণের কল্যাণের চিন্তা করে প্রথম বিরোধী দল হিসেবে যাত্রা শুরু করে আওয়ামী লীগ। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছে।’

আওয়ামী লীগের নীতি আদর্শের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, ‘আমাদের নীতি আদর্শ হচ্ছে জনগণের ভাগ্যের পরিবর্তন করা। উন্নত জীবনমান দেয়া। বঙ্গবন্ধু যেটা করেছেন। নিজে কি পেলেন না পেলেন সেই চিন্তা তিনি কখনো করেননি। সেই আদর্শ বুকে ধারণ করে আমাদের চলতে হবে। জনগণের জন্য কতটুকু করতে পারলাম, কি দিতে পারলাম সেটা চিন্তা করতে হবে।’

এসময় তিনি বলেন, কেউ অবৈধভাবে টাকা উপার্জন করবেন, বিলাসবহুল জীবন যাপন করবেন আর কেউ সৎভাবে জীবন যাপন করে সাদাসিধে জীবনযাপন করে তার জীবনটা নিয়ে কষ্ট পাবেন, তা হতে পারে না। অবৈধভাবে উপার্জিত অর্থ দিয়ে বিরিয়ানি পোলাও খাওয়া আর ব্র্যান্ড পরা থেকে সাদাসিধে জীবনযাপন করা অনেক সম্মানের। অন্তত সারাক্ষণ অবৈধভাবে চোরা টাকা, এটা মনে আসবে না। শান্তিতে ঘুমানো যাবে।

তিনি আরও বলেন, কিন্তু ওই টাকার (অবৈধ) ফলে ছেলে-মেয়ে বিপথে যাবে। ছেলে মেয়ের পড়াশোনা নষ্ট হবে, মাদকাসক্ত হবে। সেগুলো দেখার সময় নাই। টাকার পেছনে ছুটতে ছুটতে তো নিজের পরিবার ধ্বংসের দিকে যাচ্ছে। এই ধরনের একটা সামাজিক অবস্থা আমরা চাই না। আমরা চাই সৎ পথে কামাই করে যে চলবে, সে সম্মানের সঙ্গে চলবে। সৎ পথে কামাই করে যে থাকবে সে সমাজে সম্মান পাবে।

ট্যাগ: bdnewshour24 বিরিয়ানি পোলাও প্রধানমন্ত্রী