banglanewspaper

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে ‘অনুপ্রবেশকারী’ বলে অভিহিত করলেন কংগ্রেসের সিনিয়র নেতা ও সংসদ সদস্য অধীর চৌধুরী। রোববার নয়াদিল্লিতে এক সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এ মন্তব্য করেন। 

কেন্দ্রীয় বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকার এনআরসি ও নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে যে তৎপরতা চালাচ্ছে সে সম্পর্কে অধীর বলেন, ‘আমি তো এটা বলতে পারি যে, নরেন্দ্র মোদিজী, অমিত শাহজী আপনারা খোদ অনুপ্রবেশকারী। কারণ, আপনাদের বাড়ি গুজরাটে কিন্তু দিল্লিতে চলে এসেছেন। আপনারা তো স্বয়ং অভিবাসী। বৈধ কি অবৈধ তা তো পরে জানা যাবে।’

অধীর চৌধুরী বলেন, ‘গোটা দেশে জাতীয় নাগরিকপঞ্জি নিয়ে এমন পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে যে, আমাদের দেশের প্রকৃত নাগরিক তারাও ভাবছেন আমাদের কী হবে! মানুষজন সমস্ত নথিপত্র নিয়ে বসে নেই। কারণ, তারা জানেন এটা আমাদের দেশ। আমরা ভোট দিই। এতসমস্ত নথিপত্র জোগাড় করার কী প্রয়োজন আছে?

বিশেষ করে যারা গরীব  মানুষ, উপজাতি, পিছিয়ে পড়া শ্রেণি, যারা লেখাপড়া জানেন না, নিরক্ষর তাদের কাছে কী কখনও নথিপত্র থাকে? সকালে ঘুম থেকে উঠে একটাই চিন্তা তাদের যে রাতের খাবার বা আগামীকালের খাবার তারা কীভাবে জোগাড় করবেন! তাদের কাছে নাগরিকত্বের বিভিন্ন নথিপত্র খোঁজার সময় নেই। এসব লোকেরাই আজ ভীত হয়েছে।’

বিজেপিকে টার্গেট করে অধীর চৌধুরী বলেন, ‘ওরা দেখাতে চায় যে মুসলিমদের তাড়ানো হবে। কিন্তু মুসলিমদের বিতাড়িত করার হিম্মৎ ওদের নেই। মুসলিমরা যদি আমাদের দেশের নাগরিক হয় তারা কেন বিতাড়িত হবে? কারণ, ভারত সকলের জন্য।

হিন্দু-মুসলিমসহ সকলের জন্য। গঙ্গা-যমুনা সংস্কৃতির ভারত। ভারত গড়ায় সকলের সহযোগিতায় রয়েছে। কিন্তু ওরা দেখাতে চায় হিন্দুদের থাকতে দেবে কিন্তু মুসলিমদের বিতাড়িত করবে। ভারত কী কারও জায়গীর নাকি? এখানে বসবাসকারী সকলেরই সমান অধিকার।’

ভারতজুড়ে এনআরসি চালুর সর্বোচ্চ চেষ্টা করছে ক্ষমতাসীন দল বিজেপি। সম্প্রতি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও বিজেপির সভাপতি অমিত শাহ বলেছেন, গোটা দেশেই জাতীয় নাগরিকপঞ্জি কার্যকর করা হবে। তবে শুরু থেকেই এনআরসির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে আসছে কেন্দ্রীয় ও আঞ্চলিক বিভিন্ন দল।

ট্যাগ: bdnewshour24 মোদি অমিত কংগ্রেস নেতা