banglanewspaper

আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি: কৃষক বাঁচলে দেশ বাঁচবে, প্রকৃত কৃষক যেন ধান গোডাউনে দিতে পারে সে লক্ষে উপজেলা সংগ্রহ ও মনিটরিং কমিটি আত্রাই, নওগাঁর আয়োজনে আমন সংগ্রহ ২০১৯-২০২০ মৌসুমে উন্মুক্ত লটারীর মাধ্যমে ধান ক্রয় শুরু হওয়ায় কৃষকের মুখে হাঁসির ঝিলিক দেখা দিয়েছে।  

সরকারের সিদ্ধান্ত মোতাবেক আবাদী জমির মালিকানা অনুসারে কৃষকদের বড়, মাঝারী ও প্রান্তিক এই তিন শ্রেণীতে ভাগ করা হয়। শ্রেণী অনুসারে বড় কৃষক সংখ্যার ২০ শতাংশ, মাঝারী কৃষক সংখ্যার ৩০ শতাংশ এবং প্রান্তিক কৃষক সংখ্যার ৫০ শতাংশ হারে গোডাউনে ধান দিতে পারবে। যে সমস্ত কৃষক ইতিপূর্বে লটারীর মাধ্যমে গোডাউনে ধান দিয়েছে তারা এই মৌসুমে সুযোগ পাবে না। ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২০ পর্যন্ত অভ্যন্তরীণভাবে ২৬ টাকা কেজি দরে সরকার  ৫২৬ মেট্রিক টন ধান অত্র উপজেলায় ক্রয় করবে ।

সোমবার মনিয়ারী ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গনে আয়োজিত ঐ ইউনিয়নের ২৭৬৯ জন কৃষকের মধ্যহতে লটারীর মাধ্যমে ২৭৮ জন ভাগ্যবান কৃষকের উদ্যেশে উপজেলা সংগ্রহ ও মনিটরিং কমিটির সভাপতি ইউএনও মো. ছানাউল ইসলাম ধান ক্রয়ের স্বচ্ছতা নিশ্চিত কল্পে সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন। তিনি বলেন আজ যাদের লটারীতে নাম উঠেছে তাদের প্রত্যেকের নামে আমার স্বাক্ষর করা চিঠি এবং মোবাইলে এসএমএস যাবে। গোডাউনে ধান দেওয়ার সময় চিঠি এবং এসএমএস এর কপি লাগবে।
  
এসময় উপস্থিত ছিলেন কৃষি অফিসার কে এম কাউছার হোসেন, বেলাল হোসেন, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. নুরুন্নবী, চেয়ারম্যান আল্লামা শের-ই-বিপ্লব,খাদ্য গোডাউন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. রিয়াজুল হক, আত্রাই প্রেসক্লাব সভাপতি মো. রুহুল আমীন প্রমুখ।

ট্যাগ: bdnewshour24 আত্রাই