banglanewspaper

মাগুরা প্রতিনিধি: ৭ ডিসেম্বর মাগুরা মুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের এই দিনে মুক্তিযোদ্ধাদের গেরিলা ও মিত্র বাহিনীর বিমান হামলায় মাগুরা পাকহানাদার মুক্ত হয়। স্বাধীনতার দীর্ঘ ৪৮ বছর পার হলেও মাগুরায় চিহ্নিত রাজাকারদের বিচার না হওয়ায় হতাশ মুক্তিযোদ্ধারা।

মাগুরাকে শত্রু মুক্ত করতে শ্রীপুরের আকবর হোসেন মিয়ার নেতৃত্বাধীন শ্রীপুর বাহিনী, মহম্মদপুরের ইয়াকুব বাহিনী, মহম্মদপুর-ফরিদপুর অঞ্চলের মাশরুরুল হক সিদ্দিকী কমল বাহিনী, শহরের খন্দকার মাজেদ বাহিনীর নেতৃত্বে মুজিব বাহিনীসহ বীর মুক্তিযোদ্ধারা সাহসী ভূমিকা নিয়ে পাক সেনা ও স্থানীয় রাজাকার আল বদর বাহিনীর সাথে প্রাণপণ যুদ্ধ করে।

৬ ডিসেম্বর যশোর, ঝিনাইদহ ও নড়াইল এলাকা থেকে মুক্তিযোদ্ধারা মিত্র বাহিনীর বিমান হামলার সাথে সাথে মাগুরার দিকে অগ্রসর হতে থাকে। একই সাথে আকবর বাহিনীর প্রধান আকবর হোসেন মিয়া ও মোল্যা নবুয়ত আলীর নেতৃত্বে শ্রীপুর আঞ্চলিক বাহিনী মাগুরা শহর সংলগ্ন নিজনান্দুয়ালী গ্রামে এসে অবস্থান নেয়।

এ সময় মিত্রবাহিনী মাগুরা শহরের পাক সেনাদের বিভিন্ন ক্যাম্প লক্ষ্য করে বিমান হামলা চালায়। চর্তুর দিক থেকে আক্রমনের চাপে দিশেহারা পাক হানাদার বাহিনী ৬ ডিসেম্বর দুপুরের পর মাগুরা থেকে ফরিদপুরের দিকে পালিয়ে যায়। ৭ ডিসেম্বর সকালে শ্রীপুর আঞ্চলিক বাহিনী জয় বাংলা শ্লোগানে বর্তমান পুলিশ সুপার কার্যলয়ের সামনে বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন। এ সময় সর্বত্র উড়তে থাকে স্বাধীন বাংলাদেশের মানচিত্র খচিত পতাকা।

মাগুরা মুক্ত দিবস উপলক্ষ্যে সকালে বিজয়স্তম্ভে পূষ্পস্তবক অর্পণ, র‌্যালি, আলোচনাসভা ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করেছে মাগুরা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ। সন্ধ্যায় শহরে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।
 

ট্যাগ: bdnewshour24 স্বাধীনতা মাগুরা চিহ্নিত রাজাকার