banglanewspaper

প্রচণ্ড ঠান্ডায় কাঁপছে ভূস্বর্গ কাশ্মীর।  শুক্রবার রাত থেকে হাড় হিম করা ঠান্ডায় জবুথবু মানুষ তাদের প্রতিদিনকার কাজও করতে পারছেন না। ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি জানায়, ঠান্ডার কারণে সেখানে কোনো পানির লাইন দিয়ে পানি যেতে পারছে না। 

বিশ্বে সর্বনিম্ন তাপমাত্রায় বরফাচ্ছাদিত মহাদেশ অ্যান্টার্কটিকা। সেই অ্যান্টার্কটিকাকেও ছাপিয়ে গেছে কাশ্মীরের কারগিল-লাদাখ। বর্তমানে অ্যান্টার্কটিকার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা মাইনাস ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এদিকে এক দশকের মধ্যে সর্বনিম্ন রেকর্ড গড়ে লাদাখের তাপমাত্রা এখন মাইনাস ৩১.৫ আর কারগিলের তাপমাত্রা মাইনাস ২৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। 

লাদাখ আর কারগিল ছাড়াও লেহর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা এখন মাইনাস ১৩ ডিগ্রি। হাড়কাঁপানো ঠান্ডা চলছে জম্মু-কাশ্মীরেও। শুক্রবার শ্রীনগরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল মাইনাস ৫.৬ এবং পেহেলগামের তাপমাত্রা নামে মাইনাস ১০ ডিগ্রি ডিগ্রি সেলসিয়াস। 

আন্টার্কটিকার সর্বনিম্ন তাপমাত্রাকেও ছাপিয়ে যাওয়ার পর বরফের চাদরে ঢেকে গেছে গোটা কাশ্মীর। কাশ্মীরের গুলমার্গ, পেহেলগামসহ একাধিক এলাকায় বরফে ঢাকা পড়েছে রাস্তা। এককথায় পুরোপুরি বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে যান চলাচল। কাশ্মীর বরফে ঢাকা পড়ার পাশাপাশি সমগ্র উত্তর ভারতে শৈত্যপ্রবাহ চলছেই। পাল্লা দিয়ে তাপমাত্রা নামতে থাকার কারণে অন্যবারের মতো এবার কাশ্মীরে পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড় নেই। 

এদিকে ভারতের রাজধানী দিল্লির সর্বনিম্ন তাপমাত্রা প্রতিদিনই কমছে। ঘন কুয়াশার কারণে ব্যাহত হচ্ছে দিল্লির রেল ও বিমান পরিষেবা।

ট্যাগ: bdnewshour24 অ্যান্টার্কটিকা