banglanewspaper

রাজধানীর ধানমন্ডি থানায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ-ডাকসু’র ভিপি নুরুল হক নুর ও তার সহযোগী বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম-আহবায়ক রাশেদ খানকে আসামি করেছে এক ছাত্রলীগ নেতা।

শনিবার (২৮ ডিসেম্বর) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হল শাখা ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক অর্নব বাদী হয়ে সাইবার আইনে এ মামলা করেন। 

ধানমন্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবির এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।  তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাত দেওয়ার কারণে আইসিটি আইনে অর্নব এই মামলা করেছেন। মামলা নম্বর-১১।

হামলার দিন নুর ও রাশেদ ফেসবুক লাইভে এসে গুজব ছড়ায়। এছাড়া ঢাবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতির বিরুদ্ধে মিথ্যা ও মানহানিকর তথ্য ছড়িয়েছে বলে অভিযোগ করেন হল সংসদের বহিরাঙ্গন ক্রীড়া সম্পাদক অর্ণব হোড়।

এর আগে হামলার শিকার হয়ে গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ​ভিপি নুর ও রাশেদসহ ২৯ জনের বিরুদ্ধে নীলক্ষেত পুলিশ ফাঁড়িতে মামলা দায়ের করে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।

উল্লেখ্য, গত রবিবার (২২ ডিসেম্বর) ডাকসু ভবনের মূল ফটক বন্ধ করে ভিপি নুর ও তার সঙ্গীদের ওপর লাঠিসোটা নিয়ে হামলা করে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ ও ছাত্রলীগের শতাধিক নেতাকর্মীরা। এছাড়া বাইরে থেকেও ইট-পাটকেল ছুড়ে তারা। হামলাকারীরা ভিপি নুরের কক্ষে ঢুকে বাতি নিভিয়ে রড ও লাঠি দেয় বেধরক মারধর করেন।

এতে ভিপি নুরসহ অন্তত ৩০ জন নেতাকর্মী আহত হোন। তাদের অনেকের অবস্থায় আশঙ্কাজনক। তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাদের মধ্যে তুহিন ফরাবি ও এপিএম সোহেলের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদের আইসিইউতে রাখা হয়েছে।

ভিপি নুরের দাবি, বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস এবং সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসুর এজিএস সাদ্দাম হোসেনের নেতৃত্বেই হামলা হয়। প্রথমে সনজিত ও সাদ্দামসহ সবাই মিলে মারধর করে নুরুর কক্ষ থেকে ৫ জনকে বের করে দেন।

একপর্যায়ে সনজিত ও সাদ্দাম সেখান থেকে বেরিয়ে আসলে অন্য একটি গ্রুপ (মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ) ডাকসু ভবনে প্রবেশ করেন। একপর্যায়ে তারাও নুরসহ অন্যদেরকে বেধরক মারধর শুরু করেন।

ট্যাগ: bdnewshour24 ভিপি নুর