banglanewspaper

নাগরপুর(টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃ "পিঠা উৎসব শুধু উৎসব নয় বাঙ্গালি সাংস্কৃতির অবিচ্ছেদ্য অংশের অনন্য প্রকাশ" এই প্রতিপাদ্য সামনে নিয়ে ৩ ডিসেম্বর ২০২০ শুক্রবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ধুবড়িয়া সেফাতুল্লা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গণে নাগরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. জাকিরুল ইসলাম উইলিয়াম এর উদ্যোগে এক পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এই উৎসবকে প্রানবন্ত করতে পিঠা পরিবেশন, নাচ, গান, কবিতা আবৃতি ও ক্রিয়া প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

উপস্থিত সকলকে ফুল দিয়ে বরন করে নিয় শীতের পিঠা পরিবেশনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় অনুষ্ঠানের প্রথম পর্ব। পরিবেশিত পিঠার মধ্যে ভাপা, পাটিশাপটা, আন্দেশা, মুখশলা, ছেইপাকান, মোরগ সিঙ্গারা, দুধের পিঠা উল্লেখ।

ইয়ামিন ও নাজিউর রহমান শুভ্র এর সঞ্চালনায় সমবেত স্বরে জাতীয় সংঙ্গীত গাওয়ার মাধ্যমে শুরু হয় অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্ব। পরে এলাকার মেয়েরা পিঠা নিয়ে গান নাচ পরিবেশন করে।

জুম্মার নামাজের বিরতির পর, শীতের সবজী দিয়ে রান্না করা গরম খিচুড়ি পরিবেশিত হয়। খাওয়া শেষে বিবাহিত মহিলাদের বালিশ খেলার মধ্য দিয়ে শুরু হয় ক্রীড়া অনুষ্ঠান।

তীব্র প্রতিযোগিতার মাধ্যমে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় হন লাইরিন, মিতা এবং সাথী। টানটান উত্তেজনার মধ্যদিয়ে ছোটদের বালিশ খেলায় গৌরব অর্জন করে ফাতেমা, রোদৌশী ও আরশী।

এ ছাড়াও ২০-৪০ বছর বয়সী মহিলাদের হাঁড়ি ভাঙ্গা খেলায় ক্রমানুসারে বিজয়ী হন সাথী, জনি, শ্যামা। একই বয়সী মহিলাদের চেয়ার খেলায় জনি, ইয়াসমিন ও সোমা তাদের কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখেন। চেয়ার খেলায় ০-২০ বছর বয়সী মেয়েদের মধ্যে নিজেদের অবস্থান করে নেন ইশরাত জাহান, দোলা, রোজা।

উপস্থিত  ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. জাকিরুল ইসলাম উইলিয়াম। এ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ব্যাংক এশিয়ার এসিভিপি জিয়া আরেফিন নিপিন, নাগরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মো. আলম চাঁদ, দৈনিক বাংলাদেশের খবর পত্রিকার সিনিয়র সাংবাদিক আসিফ উল আলম সোহান, ধুবড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মতিয়ার রহমান, মহিলা কলেজের শিক্ষক সিজার, ধুবড়িয়া কোহিনূর স্পোর্টিং ক্লাবের নিলন্টু, তাজ, লিটন, চঞ্চল, শিশির, পাভেল, সেন্টু, নাভিন, বিএনপি নেতা নিশাত, নাগরপুর সরকারি কলেজের ভিপি আল মামুন সহ সমাজের সকল স্তরের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন প্রধান অতিথি মো. জাকিরুল ইসলাম উইলিয়াম।

ধুবড়িয়া ইউনিয়নের সকল গন্যমান্য ব্যক্তিবর্ঘ এই পিঠা উৎসবে স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে উপস্থিত হয়ে একাত্মা প্রকাশ করে, ফলে পুরো এলাকায় উৎসব মুখরিত হয়ে উঠে।

পুরষ্কার তুলে দেয়ার পর উদ্যোক্তা ও প্রধান অতিথি বলেন, পিঠা উৎসব আমাদের সাংস্কৃতির অবিচ্ছেদ্য অংশ। আমাদের দাদী-নানী, মা-বোনরাই আমাদের পিঠে তৈরী করে খাওয়ান। তাই আজ আমরা তাদের হাতে শীতের পিঠা তুলে দিয়ে একটু বিনোদনের ব্যবস্থা করতে পারায় আমরা আনন্দিত।

আগামীতে যেন আমাদের এমন আয়োজন অব্যাহত রাখতে পারি। এ উৎসবকে আরো প্রনবন্ত করতে পিঠা প্রতিযোগীতার আয়োজন করা হবে এবং বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার তুলে হবে। দূর দূরান্ত থেকে আমাদের যে সকল আত্মীয়রা এসে এ উৎসবকে প্রানবন্ত করেছেন তাদের সহ আয়োজনের সাথে সম্পৃক্ত সকলকে ধন্যবাদ জানান।

ট্যাগ: bdnewshour24 নাগরপুর