banglanewspaper

ভারতে সরকারবিরোধী দলগুলোর নিয়ন্ত্রণে থাকা রাজ্যগুলোতে নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) ও ন্যাশনাল পপুলেশন রেজিস্টারের (এনপিআর) কাজ শুরু না করার ঘোষণা দিয়েছে কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন জোট। গতকাল সোমবার নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ) বাতিলের দাবিতে জাতীয় কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধীর ডাকে রাজধানী নয়াদিল্লিতে অনুষ্ঠিত ২০ দলের বৈঠকের পর এমন ঘোষণা দেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এ খবর জানিয়েছে।

ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো বলছে, গতকালের বৈঠকে যোগ দেননি পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, বহুজন সমাজবাদী দলের নেত্রী মায়াবতী ও আম আদমি পার্টির প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়াল। এ ছাড়াও বৈঠকে আসেনি শিবসেনা ও অখিলেশ যাদবের দল সমাজবাদী পার্টি।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, কংগ্রেসের এই ঘোষণার আগেই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় তাঁর রাজ্যে এনপিআর বন্ধ করে দিয়েছেন। এ ছাড়া, কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন এনপিআরের কাজ শুধু বন্ধই করেননি, বরং আরো ১১টি রাজ্যে এই কার্যক্রম বন্ধে মুখ্যমন্ত্রীদের চিঠিও দিয়েছেন।

বলা হচ্ছে, এনপিআর হলো এনআরসির প্রথম ধাপ। ভারতজুড়ে এনপিআর চালু করার মাধ্যমেই ভবিষ্যতে এনআরসি করার প্রক্রিয়া শুরু হবে।

এদিকে বিজেপি সরকার জানিয়েছে, এনআরসির মাধ্যমে ভারত থেকে অবৈধ বিদেশি নাগরিকদের তাড়ানো হবে। কিন্তু বিরোধী দলগুলো মনে করছে, এনআরসির মাধ্যমে দেশ থেকে মুসলিমদের তাড়ানোর পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

এরই মধ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পশ্চিমবঙ্গে এনপিআরের কার্যক্রম না করার নির্দেশ দিয়েছেন। এ ছাড়া তিনি হুঁশিয়ারি দেন, বিজেপি যদি পশ্চিমবঙ্গে এনআরসি করতে চায়, তাহলে তাঁর মরদেহের ওপর দিয়ে করতে হবে।

ট্যাগ: bdnewshour24 এনপিআর