banglanewspaper

কোনো কিছুতেই যেনো থামছে না ছাত্রলীগের বেপরোয়া কর্মকাণ্ড।এবার চার শিক্ষার্থীকে রাতভর নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে।

এর আগে বুয়েট এর মেধাবী শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার মুখে পড়ে ছাত্রলীগ। সেই ঘটনার রেষ কাটতে না কাটতেই আবারো একই পরিস্থিতির ঘটনা ঘটেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে।

গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হলে চার শিক্ষার্থীকে রাতভর নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে। নির্যাতনের পর আহত শিক্ষার্থীদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা করানোর জন্য নিয়ে যায় পুলিশ।

মারধরের শিকার চার শিক্ষার্থী হলেন, মুকিম চৌধুরী (ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগ, ২য় বর্ষ), সানোয়ার হোসেন (রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ, ৩য় বর্ষ), মিনহাজ উদ্দিন (ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগ, ২য় বর্ষ, আফসার উদ্দিন (আরবী বিভাগ, ২য় বর্ষ)।

ছাত্রলীগের একটি সূত্র জানায়, ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীদের ছাত্রশিবিরের কর্মী সন্দেহে রাত ১১টায় তারা দ্বিতীয় বর্ষের এক শিক্ষার্থীকে শিবির করে কিনা জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য গেস্টরুমে ডেকে নিয়ে আসে। শিবিরের সাথে তার সংশ্লিষ্টতা রয়েছে এমন অভিযোগে তাকে মানসিক চাপ দিতে থাকে। স্বীকার না করায় তাকে মারধর করে। এ সময় তার মোবাইলে আরো তিন বন্ধুর সঙ্গে ‘যোগাযোগ তালিকায়’ নাম থাকায় তাদেরকেও ডেকে গেস্টরুমে আনা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে জহুরুল হক হলের গেস্টরুমে ছাত্রলীগের নিয়মিত আড্ডা চলছিল। তখন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মো. মুকিম চৌধুরীকে শিবির সন্দেহে গেস্টরুমে ডাকা হয়।

সেখানে হল শাখা ছাত্রলীগের বিলুপ্ত কমিটির সহ-সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমির হামজা তাদের অনুসারীদের দিয়ে মুকিমকে প্রথমে মানসিক চাপ দেয়। এতে স্বীকার না করায় তাকে লাঠি, স্ট্যাম্প ও রড দিয়ে বেধড়ক মারধর করতে থাকে। পরে তার ফোনের চ্যাটলিস্ট দেখে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী সানওয়ার হোসেনকে গেস্টরুমে আনা হয়। সেখানে তাকেও বেধড়ক মারধর করে ছাত্রলীগের নেতারা।

এর একটু পর ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মিনহাজ উদ্দীন ও একই বর্ষের আরবি বিভাগের শিক্ষার্থী আফসার উদ্দীনকে ধরে গেস্টরুমে আনা হয়। সেখানে রাত দুইটা পর্যন্ত তাদের ওপর বিভিন্ন নির্যাতন করতে থাকে ছাত্রলীগ নেতারা। পরে রাত ২টার পর তাদেরকে প্রক্টরিয়াল টিমের মাধ্যমে শাহবাগ থানায় হস্তান্তর করা হয়। তাদের অবস্থা দেখে পুলিশ তাদেরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

ছাত্রলীগের নেতারা দাবি করে তাদের কাছ থেকে শিবিরসংশ্লিষ্ট বই উদ্ধার করা হয়েছে। তবে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে তার কোনো নাম অথবা প্রমাণ দিতে পারেননি তারা। শিবির সন্দেহে তাদেরকে গেস্টরুমে ডাকা হলেও তাদের কাছে শিবিরের রাজনীতির সাথে সংশ্লিষ্টতার কোনো প্রমাণ বের করতে পারেনি ছাত্রলীগ।

ট্যাগ: bdnewshour24 বেপরোয়া ছাত্রলীগ ঢাবি ছাত্র নির্যাতন