banglanewspaper

মধ্যরাতে রাখাইনে রোহিঙ্গাদের গ্রামে আচমকা গোলাবর্ষণ করল মিয়ানমারের সেনারা। গত শুক্রবার দিবাগত রাতের এই নৃশংসতায় নিহত হয়েছেন এক অন্তঃসত্ত্বা নারীসহ দুই রোহিঙ্গা। আহত হন সাতজন।

কিন তংয়ের পাশের গ্রামের বাসিন্দা সোয়ে তুন ওউ মুঠোফোনে রয়টার্সকে বলেন, ‘গোলার আঘাতে দুটি বাড়ি পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে গেছে। সেনাবাহিনী সব সময়ই নির্বিচার গোলাবর্ষণ করে। সন্দেহ হলেই তারা গোলাবর্ষণ করে। আমরা সবাই ভীতসন্ত্রস্ত, কিন্তু জীবন বাঁচাতে অন্য কোথাও পালিয়ে যাওয়াও সম্ভব হচ্ছে না।’

এর আগে চলতি মাসের শুরুর দিকে রাখাইনে এক বিস্ফোরণে চার শিশু নিহত হয়। এ ঘটনার জন্য সেনাবাহিনী ও বিদ্রোহীরা পরস্পরকে দোষারোপ করেছে। রাখাইনে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াই করছে বিদ্রোহী আরাকন রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (আরসা)।

রোহিঙ্গাদের সুরক্ষায় জরুরি পদক্ষেপ হিসেবে গত বৃহস্পতিবারই মিয়ানমারকে চার দফা নির্দেশনা দিয়েছিলো আন্তর্জাতিক বিচার আদালত। 

রাখাইনে ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট কয়েকটি পুলিশি চৌকিতে সন্ত্রাসী হামলার জেরে রাজ্যটিতে অভিযান শুরু করে সেনাবাহিনী। এরপর প্রাণ বাঁচাতে প্রায় সাড়ে ৭ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসে। যুক্তরাষ্ট্র, জাতিসংঘসহ বিভিন্ন দেশ ও আন্তর্জাতিক সংস্থা রোহিঙ্গা নিপীড়নের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে এবং এ ঘটনাকে ‘জাতিগত নিধনের উদাহরণ’ হিসেবে আখ্যায়িত করে। মিয়ানমারের সরকার ও সেনাবাহিনী অবশ্য এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 রোহিঙ্গা গ্রাম গোলাবর্ষণ অন্তঃসত্ত্বাসহ নিহত