banglanewspaper

পছন্দের ছেলের সঙ্গে বিয়ে দিতে রাজি না হওয়ায় মা মাহমুদা বেগমকে প্রেমিক ও তার বন্ধুদের দিয়ে খুন করায় মেয়ে জুলেখা আক্তার জ্যোতি।

গত বুধবার সকালে মানিকগঞ্জ শহরের দক্ষিণ সেওতা এলাকায় নিজ বাড়িতে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয় মাহমুদা বেগমকে।

আজ সোমবার বিকেলে মানিকগঞ্জ চীফ জুডিশিয়াল আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শাকিল আহমেদের কাছে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয় গ্রেপ্তার জ্যোতি, নাঈম ও নাঈমের সহযোগী রাকিব।

মানিকগঞ্জ সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শামীম আল মামুন জানান, মাহমুদা বেগমকে নিজ ঘরে খাটের উপর লেপচাপায় শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়।

পরে জ্যোতিকে হাত-পা ও মুখ বেঁধে তার মাকে হত্যা করে স্বর্ণালংকার লুটের নাটক সাজায় তারা। কিন্তু পুলিশের তদন্তে হত্যার রহস্য উদঘাটন হয়।

পুলিশের ওই কর্মকর্তা আরও বলেন, মেয়ে জ্যোতিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হত্যার দিনই থানায় ডেকে নেয় পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে তার সম্পৃক্ত থাকার কথা স্বীকার করে জ্যোতি। বৃহস্পতিবার রাতে গ্রেপ্তার দেখিয়ে শুক্রবার বিকেলে তাকে আদালতে পাঠানো হয়। হত্যাকাণ্ডের অধিকতর তথ্য আদায়ের লক্ষ্যে আদালতের বিচারকের কাছে ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়। বিচারক ৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

শুক্রবার বিকেলে নিহতের স্বামী জহিরুল ইসলাম বাদী হয়ে মানিকগঞ্জ সদর থানায় মেয়ে জ্যোতি আক্তার, তার কথিত প্রেমিক নাঈম ইসলাম এবং তার সহযোগী রাকিব ও অন্য দুই সহযোগীর বিরুদ্ধে পূর্বপরিকল্পিতভাবে হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ দায়ের করেন।

ট্যাগ: bdnewshour24 মেয়ে মা খুন